গলাচিপায় ক্রয়কৃত সম্পত্তিতে প্রভাবশালীদের বাঁধা!

প্রথম পাতা » পটুয়াখালী » গলাচিপায় ক্রয়কৃত সম্পত্তিতে প্রভাবশালীদের বাঁধা!
বুধবার ● ১৫ মে ২০২৪


গলাচিপায় ক্রয়কৃত সম্পত্তিতে প্রভাবশালীদের বাঁধা!

গলাচিপা (পটুয়াখালী) সাগরকন্যা প্রতিনিধি॥

পটুয়াখালীর গলাচিপায় প্রভাবশালীদের বিরুদ্ধে জমি দখলের অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার গোলখালী ইউনিয়নের চর সুহরী গ্রামে। বুধবার (১৫ মে) ভূক্তভোগী জমির মালিক দেলোয়ার মৃধা (৬৩) জানান, জীবনের ৫০বছর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাথে জীবনটা শেষ করে দিলাম। আজ আমার দল ক্ষমতায় থাকলেও সরকার থেকে শুরু করে নেতাকর্মীদের কাছে কোন সুরহা পাই নাই।
দীর্ঘ ৩৫ বছর আগে আদম আলী সিকদারের কাছ থেকে আমি ৩০ শতাংশ অনাবাদ জমি ক্রয় করি। আমার ক্রয়কৃত সম্পত্তিতে বন জঙ্গল ভরা ছিল। আমি সেগুলো পরিস্কার করে বাড়ি ঘর তৈরি করি, গাছপালা লাগিয়ে এবং বাকি জমিতে কৃষিকাজ করে জীবিকা নির্বাহ করি। হঠাৎ এলাকার কিছু কুচক্রী প্রভাবশালী মহল আমার জমিতে চাষাবাদ ও বাড়ি ঘর, গাছপালা দেখে লোভের বশবর্তী হয়ে আমাকে উৎখাত করার জন্য বিভিন্ন ষড়যন্ত্র করে আসছে। তারা নামে বেনামে আমার বিরুদ্ধে বিভিন্ন জায়গায় অভিযোগ দিয়ে আসছে। আমি দ্বারে দ্বারে ঘুরেও এর কোন সুরহা পাই নাই। এ সময় তিনি আরও বলেন, তারা ভারা করা সন্ত্রাসী লোকজন দিয়ে আমাকে ও আমার পরিবারের লোকজনকে বিভিন্ন ভয়ভীতি দেখায়। এ কী আজব ব্যাপার! দেশটা কি মগের মুল্লুক হয়ে গেল? প্রভাবশালীদের হাত থেকে বাঁচার জন্য আমি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, জাতীয় সংসদ সদস্য সহ প্রশাসনের সদয় দৃষ্টি কামনা করছি। এ বিষয়ে দেলোয়ার মৃধার স্ত্রী পারভীন বেগম (৫৫) বলেন, আমার ২ ছেলে ও ১ মেয়ে নিয়ে এই সংসার করে আসছি। বিবাহের পর থেকে ৩৫ বছর আগে আদম আলী সিকদারের কাছ থেকে আমার স্বামী ৩০ শতাংশ জমি ক্রয় করে। এই জমিতে আমাদের ঘর বাড়ি থেকে শুরু করে কৃষি কাজ করে আসছি। হঠাৎ করে একদল সন্ত্রাসী বাহিনী আমাদের জমি জোর করে নেওয়ার জন্য পায়তারা চালাচ্ছে। এ বিষয়ে ইউনিয়ন পরিষদে একাধিকবার বসা হলেও কোন সুরহা হয় নাই। শুনেছি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ঘোষণা দিয়েছেন দলিল যার জমি তার। আমাদের দলিল ও দখল থাকা সত্ত্বেও তারা আমাদের জমি কীভাবে দখল করতে আসে তা আমাদের বুঝে আসে না। এ বিষয়ে সাবেক ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আ. খালেক মিয়া বলেন, দীর্ঘ বছর পর্যন্ত দেলোয়ার মৃধা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাথে জড়িত। দলের দূর্দিনে আমরা তাকে কাছে পেয়েছি। তার সাথে এরকম ঘটবে আমরা আশাও করি নাই। বিষয়টি খুবই দুঃখ জনক ঘটনা। আজ দেলোয়ার মৃধার জমি দখল করার চেষ্টা করছে তাহলে তো অন্য দিন আমার জমিও দখল করতে আসবে। তাই আমি বিষয়টি সুরহার জন্য জোর দাবী জানাচ্ছি। এ বিষয়ে বর্তমান ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আ. হালিম হাওলাদার ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেন। ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মো. নাসির উদ্দিন হাওলাদার বলেন, বিষয়টি নিয়ে অনেকবার বসা হয়েছে। দু’পক্ষকে আবারো ইউনিয়ন পরিষদে ডেকে মীমাংসার ব্যবস্থা করব। এ বিষয়ে দেলোয়ার মৃধা গলাচিপা সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপারের বরাবরে ন্যায় বিচার পাওয়ার জন্য আবেদন করেন। গলাচিপা থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. ফেরদৌস আলম খান বলেন, অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এসডি/এমআর

বাংলাদেশ সময়: ০:১৩:২৬ ● ৯৪ বার পঠিত




পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)

আর্কাইভ