আমতলীতে অগ্নিদগ্ধে শিশু নিহত!

প্রথম পাতা » বরগুনা » আমতলীতে অগ্নিদগ্ধে শিশু নিহত!
মঙ্গলবার ● ৪ জুন ২০২৪


আমতলীতে অগ্নিদগ্ধে শিশু নিহত!

আমতলী (বরগুনা) সাগরকন্যা প্রতিনিধি॥

স্টেশন থেকে মাত্র চার কিলোমিটার পথ আসতে ৫০ মিনিট সময় লেগেছে ফায়ার সার্ভিস কর্মীদের। দীর্ঘ সময় লাগায় মা-বাবার চোখের সামনেই ঘরের মধ্যে অগ্নিদগ্ধ হয়ে জুনায়েদ নামের পাঁচ বছরের এক শিশুর নিহত হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে বরগুনার তালতলী উপজেলা বড় অঙ্কুজানপাড়া গ্রামে সোমবার রাত আটটার দিকে। এ ঘটনায় এলাকা জুড়ে বইছে শোকের মাতম। ঘটনাস্থলে দেরীতে পৌঁছানোর কথা স্বীকার করেছেন, তালতলী ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের স্টেশন মাস্টার বদিউজ্জামান। এছাড়া অগ্নি দুর্ঘটনায় বসতঘর পুড়ে যাওয়া ও শিশু জোনায়েদেও নিহতের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন তালতলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শহিদুল ইসলাম খান মিলন।
জানাগেছে, সোমবার রাত ৮টার দিকে তালতলীর নিশানবাড়িয়া ইউনিয়নে বড় অঙ্কুজানপাড়া গ্রামের তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রের ৩নং গেট এলাকার সালাম গাজীর ঘরে আগুন লাগে। তাৎক্ষনিক স্থানীয়রা আগুন নেভাতে চেষ্টা করে। কিন্তু তারা ব্যর্থ হয়। পরে তালতলী ফায়ার সার্ভিস কর্তৃপক্ষকে খবর দেয়। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যাচ্ছিল ফায়ার সার্ভিস কর্তৃপক্ষ কিন্তু পথিমধ্যে তালতলী মাদ্রাসা মাঠে রেজবি-উল কবির জোমাদ্দারের নির্বাচনী জনসভায় মানুষেল ভীর ঠেলে আসলে বিলম্ব হয়। ৪ কিলোমিটার পথ ফায়ার সার্ভিস কর্মীদের ঘটনাস্থলে যেতে ৫০ মিনিট সময় লাগে। ততক্ষণে সব কিছু পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। ওই ঘরের মধ্যে থাকা ছালাম গাজীর পাঁচ বছরের ছেলে  জুনায়েদ  নিহত হয়। খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থল পরিদর্শন করছেন তালতলী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সিফাত আনোয়ার তুমপা।
প্রত্যক্ষদর্শীরা বলেন বিদ্যুৎ না থাকায় ঘরে কেরোসিনের ল্যাম্প জ্বালিয়ে প্রকৃতির ডাকে সাড়া দিতে বাহিরে যান শিশু জুনায়েদের মা কুলসুম বেগম। কিছুক্ষণ পরে ঘরে আগুন জ্বলতে দেখে চিৎকার দিলে স্থানীয়রা ছুটে এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করে। ওই সময় মাত্র চার কিলোমিটার দূরে অবস্থিত তালতলী ফায়ার সার্ভিস স্টেশনের খবর দেয়া হয়। কিন্তু ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা আসছেন না। প্রায় পঞ্চাশ মিনিট পরে মাত্র চার কিলোমিটার দুরত্বের ঘটনাস্থলে পৌঁছান তারা। কিন্তু ততক্ষণে মা বাবার চোখের সামনেই আগুনে দগ্ধ হয়ে ঘটনাস্থলেই মারা যায় শিশু জোনায়েদ। পরে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে এবং ঘর থেকে আগুনে পোড়া শিশু জোনায়েদের মরদেহ উদ্ধার করে। তবে ঘটনাস্থলে যাওয়ার সময় ফায়ার সার্ভিসের গাড়ির কোন জরুরী সাইরেনের শব্দ শুনতে পায়নি স্থানীয়রা।
তালতলী ফায়ার সার্ভিসের ষ্টেশন মাস্টার বদিউজ্জামান ঘটনাস্থলে পৌঁছাতে অতিরিক্ত সময় লাগার বিষয়টি স্বীকার করে বলেন বলেন, পথে রেজবি-উল কবির জোমাদ্দারের নির্বাচনী জনসভা শেষে মানুষ বাস্তায় দাড়িয়ে থাকায় ঘটনাস্থলে আসতে অতিরিক্ত সময়  লেগেছে। তবে ৫০ মিনিট সময় লাগার বিষয়টি অস্বীকার করে আরো বলেন ১০ মিনিট অতিরিক্ত সময় বেশি লেগেছে। জরুরী সাইরেন না বাজানোর বিষয় জানতে চাইলে সাইরেনটি অকেজো হয়ে গেছে বলে জানান ওই কর্মকর্তা।
তালতলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শহিদুল ইসলাম খাঁন মিলন বলেন, অগ্নি দুর্ঘটনায় ঘর পুড়ে দগ্ধ হয়ে জোনায়েদ নামের এক শিশুর নিহত হয়েছে। এ ঘটনায় তালতলী থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে।

এমএইচকে/এমআর

বাংলাদেশ সময়: ২৩:২২:২২ ● ৩০ বার পঠিত




পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)

আর্কাইভ