গৌরনদীতে অপহৃতা তরুণীর লাশ উদ্ধারে মামলা!

প্রথম পাতা » বরিশাল » গৌরনদীতে অপহৃতা তরুণীর লাশ উদ্ধারে মামলা!
বুধবার ● ৫ জুন ২০২৪


গৌরনদীতে অপহৃতা তরুণীর লাশ উদ্ধারে মামলা!

গৌরনদী (বরিশাল) সাগরকন্যা প্রতিনিধি॥

বরিশালের গৌরনদীতে  এসএসসি উত্তীর্ণ এক ছাত্রীকে (১৬) অপহরণের পর নির্যাতন ও সড়ক দুর্ঘটনায় নিহতের অভিযোগে প্রেমিকসহ তিন জনকে আসামি করে গৌরনদী থানায়  একটি অপহরণ  ও চুরির মামলা দায়ের করা হয়েছে। মঙ্গলবার রাতে উপজেলার নলচিড়া ইউনিয়নের কান্ডপাশা গ্রামের
কাঠমিস্ত্রি আব্দুর রহমান খানের স্ত্রী জরিনা বেগম (৫৯) বাদি হয়ে এ মামলা দায়ের করেন। মামলার আসামিরা   হলো- একই উপজেলার নলচিড়া খানবাড়ি গ্রামের হৃদয় গাজী (২৪), তার দাদা শফি গাজী (৬৫), ফুপাতো ভাই মো. শান্ত (২২)।
মামলার বাদি অভিযোগ করে বলেন, উপজেলার নলচিড়া খানাবাড়ি গ্রামের মাহবুব গাজীর ছেলে বিবাহিত হৃদয় গাজীর সঙ্গে তার মেয়ে এসএসসি উত্তীর্ণ নুসরাত জাহান ঝুমুরের (১৬) প্রেমের সম্পর্ক ছিলো। বান্ধবীর বাড়িতে বেড়াতে যাওয়ার কথা বলে আমার মেয়ে ঝুমুর গত ২৯ মে সকাল ৯টার দিকে নিজ বাড়ি থেকে নলচিড়া গ্রামের উদ্দেশ্যে রওনা দেয়। পথিমধ্যে হৃদয় গাজীর নেতৃত্বে বখাটে ২/৩ যুবক ঝুমুরের পথরোধ করে। এ সময় তারা ঝুমুরকে জিম্মি করে জোরপূর্বক অপহরণ করে বেলা ১১টার দিকে দাদা শফি গাজীর বাড়িতে নিয়ে যায়। সেখান থেকে ঝুমুরকে দুপুর ১২টার দিকে হৃদয় গাজী তার ফুপু  বাড়িতে নিয়ে আটকে রাখে। এ সময় ঝুমুরকে মাদক সেবন করিয়ে জোরপূবক ঝুমুরের সাথে থাকা ১০আনা ওজনের স্বর্ণালংকার ছিনিয়ে নিয়ে মানসিক ও শারীরিক নির্যাতন করে হৃদয় ও তার সহযোগীরা। পরবর্তীতে সন্ধ্যা ৭টার দিকে ঝুমুরকে মাহিলাড়া এলাকায় বরিশাল- ঢাকা মহাসড়কের পাশে ফেলে প্রেমিক হৃদয় পালিয়ে যায়। গাড়ির ধাক্কায় গুরুতর আহত অবস্থায় অজ্ঞাতনামা যুবতীকে উদ্ধার করে স্থানীয়রা রাতেই বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করলে অজ্ঞাত পরিচয়ের রোগি হিসেবে চিকিৎসাধীন থাকার পর গত ১জুন রাতে ঝুমুর মারা যায়। ঝুমুরের লাশ শনাক্ত করে ২ জুন  রাতে বাড়িতে এনে ঝুমুরের লাশ পারিবারিক গোরস্থানে দাফন করা হয়।
গৌরনদী মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. মাজহারুল ইসলাম জানান, খবর পেয়ে বরিশাল মডেল কোতোয়ালী থানা পুলিশ  শেবাচিম হাসপাতাল থেকে ঝুমুরের লাশ উদ্ধার করে সড়ক দুর্ঘটনায় মারা যাওয়ার  জিডি দায়ের করে বরিশাল মর্গে ময়নাতদন্ত সম্পন্ন করেছে। নিহত ঝুমুরের মা জরিনা বেগম বাদি হয়ে প্রেমিক হৃদয় গাজীসহ তিনজনকে আসামি করে মঙ্গলবার রাতে গৌরনদী থানায় একটি অপহরণ ও চুরির মামলা দায়ের করেছে। মামলার আসামিদের গ্রেফতার এবং চুরি হওয়া স্বর্ণালংকার ও মোবাইল ফোন উদ্ধারের জোর প্রচেষ্টা চলছে।

এএসআর/এমআর

বাংলাদেশ সময়: ০:১৪:১৭ ● ৩০ বার পঠিত




পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)

আর্কাইভ