সংবাদ প্রকাশের জেরগৌরনদীতে যুগান্তর প্রতিনিধির বিরুদ্ধে মামলা!

প্রথম পাতা » বরিশাল » সংবাদ প্রকাশের জেরগৌরনদীতে যুগান্তর প্রতিনিধির বিরুদ্ধে মামলা!
মঙ্গলবার ● ৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৩


গৌরনদীতে যুগান্তর প্রতিনিধির বিরুদ্ধে মামলা!

গৌরনদী (বরিশাল) সাগরকন্যা প্রতিনিধি॥

সংবাদ প্রকাশের জের ধরে দৈনিক যুগান্তরের বরিশালের গৌরনদী প্রতিনিধি আসাদুজ্জামান রিপনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে। তবে মামলায় সংবাদ প্রকাশের কোনো বিষয় উল্লেখ না করে চাঁদাবাজি, শ্লীলতাহানি, জিম্মি করে স্বর্নালঙ্কার ও নগদ অর্থ আদায়ের অভিযোগ আনা হয়েছে। মামলায় দৈনিক আজকালের খবরের গৌরনদী প্রতিনিধি রনি কাজীসহ আরও ৮ জনকে আসামি করা হয়েছে।
সোমবার বরিশাল সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আমলী আদালতে মামলাটি দায়ের করেন গৌরনদীর বার্থী এলাকার বাসিন্দা ও মালয়েশিয়া প্রবাসী মকবুল বেপারীর স্ত্রী লাকি বেগম। আদালতের বিচারক মনিরুজ্জামান মামলাটি আমলে নিয়ে পিবিআইকে আগামী ৫ এপ্রিলের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেওয়ার নির্দেশ দেন।
মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, বার্থী ইউপি সদস্য করিম লস্করের সাথে বাদী লাকি বেগমের সখ্যতা থাকার সূত্র ধরে বিভিন্ন সময় বাদীকে কু প্রস্তাব দিতো সে। রাজি না হওয়ায় ভয় ভীতি দেখাতো বাদীকে। ২৫ জানুয়ারি রাতে আগৈলঝাড়া উপজেলার ফুলশ্রী গ্রামের শাহাদাত হোসেনের ভাড়াটিয়া বাসায় আসামিরা প্রবেশ করে। ভয় ভীতি দেখিয়ে অশ্লীল ছবি তুলে ও মারধর করে। ওই সব ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেওয়ার ভয় দেখিয়ে স্বর্নালঙ্কার ও নগদ অর্থ আদায় করে বলে আসামীদের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হয়। এই অভিযোগেই মামলা দায়ের করা হয়েছে।
তবে মামলার এসব অভিযোগের বিষয়ে দৈনিক যুগান্তরের গৌরনদী উপজেলা প্রতিনিধি আসাদুজ্জামান রিপন বলেন, লাকি বেগম তার শ্বশুর ও দেবরের বিরুদ্ধে শ্লীলতাহানি ও মারধরের পৃথক দুটি মামলা এবং ইউপি সদস্য করিম লস্করের বিরুদ্ধে মারধরের অভিযোগে দুটি মামলা দায়ের করে, যা আদালতে বিচারাধীন রয়েছে। ইউপি সদস্য ও লাকি বেগমের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনায় পাল্টাপাল্টি তিনটি মামলা বিচারাধীন রয়েছে। এই নিয়ে লাকি বেগম ৫টি মামলার বাদী।
তিনি জানান, প্রবাসীর স্ত্রী লাকি বেগম ও তার পরকিয়া প্রেমিক ফরিদপুরের পশ্চিম খাবাসপুর এলাকার বাসিন্দা মাসুদ খানকে অনৈতিক কাজের সময় বাড়ির মালিক শাহাদাত হোসেন ও স্থানীয়রা হাতেনাতে আটক করে। এই সংবাদ ২৭ জানুয়ারি এবং বিভিন্ন সময় তার কর্মকান্ড নিয়ে দৈনিক যুগান্তরে সংবাদ প্রকাশিত হলে ক্ষিপ্ত হয় লাকি বেগম। আমাকে এবং আমার পরিবারের ২ সদস্যকে হয়রানির উদ্দেশ্যে এই মিথ্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে। দায়েরকৃত উক্ত মামলাটি সম্পূর্ণ মিথ্যা ও ভিত্তিহীন বলে  রিপন জানান।
ওই বাসার মালিক শাহাদাত হোসেন জানান,  গৌরনদী উপজেলার বার্থী গ্রামের মালয়েশিয়া প্রবাসী মকবুল বেপারীর স্ত্রী ও দুই সন্তানের জননী লাকি বেগম (৩৪)  গত সাড়ে তিন মাস পূর্বে তার পাকা ভবনের একটি রুম ভাড়া নিয়ে একাই বসবাস করে আসছিল। ওই প্রবাসীর দুই ছেলে আগৈলঝাড়ার একটি মাদ্রাসার বডিংয়ে থেকে পড়াশুনা করে আসছে। গত ২৫ জানুয়ারি রাতে অনৈতিক (অবৈধ মেলামেশার) কাজের সময় স্থানীয় লোকজনে তার বাসার ভাড়াটিয়া  প্রবাসীর স্ত্রী লাকি বেগম(৩৪) ও পরকীয়া  প্রেমিক ফরিদপুর  জেলার মাসুদ খান (৩৭)কে হাতেনাতে আটক করে। এ খবর জানাজানি হলে ওই পরকীয়া প্রেমিক ও প্রবাসীর  স্ত্রীকে দেখার জন্য গ্রামবাসীসহ উৎসুক  জনতা তার বাড়িতে ভিড় করে।  প্রবাসীর স্ত্রীর বড় ভাই সেজে ফরিদপুর জেলার মাসুদ খান প্রতি মাসে একবার তার ভাড়াটিয়া বাসায় এসে  ৪/৫ দিন  করে  থেকে চলে যায়। গত তিনদিন পূর্বে  ভাড়াটিয়া বাসায়  মাসুদ খান এলে স্থানীয়রা ওৎ পেতে অনৈতিক কাজের  সময়  প্রবাসীর স্ত্রী ও পরকীয়া প্রেমিক মাসুদকে হাতেনাতে ধরে ফেলেন। পরবর্তীতে প্রবাসীর স্ত্রী ও পরকীয়া প্রেমিক ক্ষমা চেয়ে পার পেয়ে যায় ।

এআর/এমআর

বাংলাদেশ সময়: ২১:৫৬:২৯ ● ১৬৯ বার পঠিত




পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)

আর্কাইভ