কলাপাড়ায় ধনীরা পেল প্রধানমন্ত্রীর ঈদ উপহার, বঞ্চিত হতদরিদ্ররা

প্রথম পাতা » পটুয়াখালী » কলাপাড়ায় ধনীরা পেল প্রধানমন্ত্রীর ঈদ উপহার, বঞ্চিত হতদরিদ্ররা
সোমবার ● ১৭ মে ২০২১


কলাপাড়ায় ধনীরা পেল প্রধানমন্ত্রীর ঈদ উপহার, বঞ্চিত হতদরিদ্ররা

কলাপাড়া (পটুয়াখালী) সাগরকন্যা অফিস॥

 

প্রতিবন্ধী, বেকার আব্দুল জলিল তালুকদারের বাড়ি চাকামইয়া ইউনিয়নের বেতমোড় গ্রামে। চার জনের সংসারে অভাবনীয় কষ্ট। নিজে কোন কাজও করতে পারেন না। এই পরিবারটি ভাগ্যে জোটেনি প্রধানমন্ত্রীর দেয়া ঈদ উপহার বিশেষ ভিজিএফ ৪৫০ টাকা। মানুষটি এখন কী করবেন। একই দশা রজপাড়া আবাসনের মোহাম্মদ বাদশার। বয়োবৃদ্ধ মানুষটির চারজনের সংসাওে কষ্টের সীমা নেই। তার ভাগ্যেও জোটেনি ঈদের উপহার। অথচ ওই ইউনিয়নে ঈদ উপহার হিসেবে ৪৫০ টাকা করে ৪৬১৫ পরিবারের জন্য বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। বিতরণও শেষ হয়েছে। পশ্চিম ধুলাসার গ্রামের তাসলিমা জানান, চারটি সন্তান রেখে স্বামী ১৪ বছর নিরুদ্দেশ। এরপরে সংসারের ঘানি টানছেন। যেন বইতে না পারার বোঝা। দুই মেয়েকে বিয়ে দিয়েছেন। এখন বিভিন্ন জনের বাড়িতে যখন যে কাজ জোটে তাই করে সংসারের যোগান দেন। তবে এবারে ভিজিডির চাল পেতে শুরু করেছেন। স্বামী পরিত্যক্তা এই মহিলার ভাগ্যেও জোটেনি ৪৫০ টাকার উপহার। এক ঘরের চার/পাঁচ জনকেও ৪৫০ করে টাকা দেয়ার অভিযোগ তার। একই গ্রামের জেলে কালাম সিকদার জানালেন তিনিও পাননি ৪৫০টাকার উপহার। স্ত্রী বিউটি বেগম ও চার মেয়ে নিয়ে কালাম সিকদারের সংসার। বালিয়াতলীর চরনজীব গ্রামের শ্রমজীবী, নিতান্ত অসহায় মোঃ আবুল। চার জনের সংসারের বোঝা টানতে মানুষটি কাহিল। জোটেনি তার ভাগ্যে প্রধানমন্ত্রীর ঈদের উপহার ৪৫০ টাকা। একই অভিযোগ ওই গ্রামের মোঃ খলিলের, লঞ্চঘাটের লেবারের কাজ করছেন। দরিদ্র মতলেব মৃধার ভাষ্য একই। এমন দৃশ্য কয়েকটি ইউনিয়নের।
পবিত্র ঈদ-উল-ফিতর উপলক্ষ্যে কলাপাড়ার ১২টি ইউনিয়ন ও দুইটি পৌরসভার জন্য প্রধানমন্ত্রী ৬৬ হাজার ৯১৬ পরিবারকে ঈদ উপহার হিসেবে বিশেষ ভিজিএফএর ৪৫০ টাকা করে বিতরন করা হয়েছে। নগদ এই টাকা ইতোমধ্যে বিতরন সম্পন্ন হয়েছে। তবে জনপ্রতিনিধিদের সরকারি নির্দেশনা দেয়া রয়েছে দুস্থ/ অন্যান্য দূর্যোগাক্রান্ত/ অতিদরিদ্র ব্যক্তি-পরিবারের সহায়তা প্রদানের জন্য ভিজিএফএর এই টাকা দেয়া বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। কিন্তু বিতরণে অন্তত ৪০ ভাগ টাকা বিত্তবানদের দেয়া হয়েছে। নিয়ম-কানুন মানা হয়নি অধিকাংশ ক্ষেত্রে। ফলে সরকার প্রধান মানবতার মা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দেয়া দরিদ্র মানুষের জন্য ঈদের উপহার ৪৫০ টাকা শত শত দরিদ্র পরিবারের ভাগ্যে জোটেনি। বঞ্চিতদের অভিযোগ বিতরণ তালিকা টানিয়ে দেয়া হোক। তাইলেই বের হয়ে যাবে কারা এই টাকা পেয়েছেন। ২০১১ সালের আদম শুমারি অনুসারে কলাপাড়ায় মোট পরিবার সংখ্যা ৫৭হাজার ৫২৫ টি। আর ২০১৯ সালের কৃষিশুমারির হিসেবে মোট পরিবার সংখ্যা ৬২ হাজার ২৮২ টি। তবে কৃষিশুমারির এই তথ্য সরকারিভাবে এখন পর্যন্ত স্বীকৃত নয়। প্রকাশ হয়নি। এই হিসেবে অর্ধেক পরিবার দরিদ্র-হতদরিদ্র হলেও কেউ বাদ যাবার নয়। কিন্তু জনপ্রতিনিধির নিকটজন, সমর্থক। পছন্দের মানুষ, বিত্তবানদের মধ্যে এই টাকা নিজেদের মতো বিতরনের ফলে বঞ্চিত রয়েছে প্রকৃত পাওয়ার দাবিদার শত শত পরিবার।

এমইউএম/এমআর

বাংলাদেশ সময়: ২১:৫০:৪৮ ● ৯৯ বার পঠিত




পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)

আর্কাইভ