গৌরনদীতে সাবেক স্বামীর বাড়িতে স্ত্রী’র অনশন!

প্রথম পাতা » বরিশাল » গৌরনদীতে সাবেক স্বামীর বাড়িতে স্ত্রী’র অনশন!
বুধবার ● ২৪ মে ২০২৩


গৌরনদীতে সাবেক স্বামীর বাড়িতে স্ত্রী’র অনশন!

গৌরনদী (বরিশাল) সাগরকন্যা প্রতিনিধি॥

যৌতুক ও নির্যাতনের পৃথক ২টি মামলা আদালতে বিচারাধীন থাকার পরও বরিশালের গৌরনদীতে স্বামীর অধিকার আদায়ের দাবিতে তালাকপ্রাপ্তা স্ত্রী নাজমিন আক্তার (২৯) অনশন করেছে। উপজেলার বার্থী ইউনিয়নের তাঁরাকুপি গ্রামের সাবেক ইউপি সদস্য দেলোয়ার বেপারীর বাড়িতে সোমবার বেলা ১১টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত  এ অনশন করেন এক সন্তানের জননী ওই নারী।
জানাগেছে, গত সাড়ে ১২ বছর পূর্বে উপজেলার তাঁরাকুপি গ্রামের সাবেক ইউপি সদস্য দেলোয়ার বেপারীর ছেলে রিয়াজ বেপারীর সঙ্গে একই উপজোর মাগুরা গ্রামের  ছবদের হাওলাদারের কন্যা নাজমিন আক্তারের  সামাজিক ভাবে বিয়ে হয়। বিয়ের ১ বছর পর বিদেশে চাকরির জন্য স্বামী রিয়াজ বেপারী  দুবাই চলে যান। মায়ের অসুখের কথা বলে স্ত্রী নাজমিন আক্তার  ২০১৭ সালের ৪ জানুয়ারি বাবার বাড়িতে চলে যান। সে (নাজমিন) স্বামীর বাড়িতে ফিরে না এসে  ১ বছর পর জানায়, সে আর স্বামী রিয়াজের বাড়িতে যাবেন না। এরপর  রিয়াজ দেশে ফিরে ২০১৮ সালে স্ত্রী নাজমিনকে তালাক দিয়ে আবার প্রবাসে চলে যান। এরপর নাজমিন আক্তার বাদি হয়ে শ^শুর ও শাশুড়িকে আসামি করে ২০১৮ সালের ৩১ জুলাই বরিশাল সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আাদালতে নারী  নির্যাতন আইনে আদালতে একটি মামলা দায়ের করে।  যায় সি.আর মামলা নং ৩৩৫/১৮। পরে রিয়াজ দেশে ফিরলে তালাকপ্রাপ্ত স্ত্রী নাজমিন বাদি হয়ে  রিয়াজ বেপারীকে আসামি করে নাজমিন বাদি হয়ে ২০১৯ সালের ১ অক্টোবর বরিশাল আদালতে আর একটি যৌতুক মামলা দায়ের করে। যার সি.আর মামলা নং ২৪৫/১৯।  নাজমিনের দায়েরকৃত ওই দুইটি মামলা বর্তমানে বরিশাল আদালতে বিচারাধীন রয়েছে।
মামলার আসামি সাবেক স্বামী রিয়াজ বেপারী  বলেন, গত ৫ বছর পূর্বে আমার মা-বাবা একাধিকবার আমার শ^শুর বাড়িতে গিয়ে নাজমিনকে আমাদের বাড়িতে ফিরিয়ে আনার চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়। এমনকি তখন আমার অনুরোধেও নাজমিন আমাদের বাড়িতে ফিরে আসেনি। আমার একমাত্র মেয়েকে আমার কাছে রাখতে চাইলেও নাজমিন মেয়েকে দেয়নি। বিভিন্ন কারণে গত ৫ বছর পূর্বে স্ত্রী নাজমিনকে আমি তালাক দেই।  বর্তমানে আমার ও আমার মা-বাবার বিরুদ্ধে নাজমিনের দায়েরকৃত পৃথক ২টি মামলা বরিশাল আদালতে  বিচারাধীন রয়েছে। এখন আমাকে ও আমার পরিবারের সদস্যদের হয়রানি করার উদ্দেশ্যে ও আমাদের ভাবমূর্তি নষ্ট করার জন্য একটি কুচক্রী মহলের প্ররোচনায় তালাকপ্রাপ্ত স্ত্রী নাজিমিন গত সোমবার আমাদের বাড়িতে এসে অবস্থান নিয়ে বেআইনি ভাবে স্বামীর অধিকার দাবি করে।  আদালতে যে রায়  দিবে সে অনুয়ায়ী স্থানীয় গণমান্যরা চলার পরামর্শ দিলে সন্ধ্যা ৬টার দিকে নাজমিন  তার বাবার বাড়িতে চলে যায়।
এ ব্যাপারে নাজমিন আক্তার  বলেন, আমি এখনও কোন তালাকনামা পাইনি।  যৌতুক ও নির্যাতন মামলা করেছি বলে কি আমি স্বামীর অধিকার থেকে বঞ্চিত হয়েছি। আমার মেয়ে পিতৃ পরিচয়ের জন্য ও স্বামীর অধিকার পেতে আমি এ বাড়িতে অবস্থান নিয়েছি। গত ৫ বছর পর এখন আসার  বিষয়ে জিজ্ঞাসা করলে নাজমিন কোন সদুত্তোর দিতে পারেননি।
গৌরনদী থানার ওসি আফজাল হোসেন জানান, এ ব্যাপারে তিনি কোন পক্ষের লিখিত অভিযোগ পাননি।  অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এএসআর/এমআর

বাংলাদেশ সময়: ২১:১৯:৪৫ ● ১০ বার পঠিত




পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)

আর্কাইভ