কাউখালীতে বৃষ্টিতে ফসলের ক্ষতির আশঙ্কা

প্রথম পাতা » পিরোজপুর » কাউখালীতে বৃষ্টিতে ফসলের ক্ষতির আশঙ্কা
মঙ্গলবার ● ৭ ডিসেম্বর ২০২১


কাউখালীতে বৃষ্টিতে ফসলের ক্ষতির আশঙ্কা

কাউখালী(পিরোজপুর)সাগরকন্যা প্রতিনিধি॥

ঘূর্ণিঝড় জাওয়াদের প্রভাবে ঝড়ো হাওয়া, বৃষ্টি ও জোয়ারের প্রভাবে শনিবার রাত হতে মঙ্গলবার সকাল পর্যন্ত লাগাতার বৃষ্টির কারণে পিরোজপুরের কাউখালীর কৃষকরা জমিতে আধা পাকা ও পাকা ধান নিয়ে ব্যাপক চিন্তায় পড়েছেন। বৃষ্টির সাথে হালকা বাতাস থাকায় কৃষকদের রোপা আমন ধান পানিতে শুয়ে পড়েছে। এতে আধা পাকা ও কাঁচা ধানের ব্যাপক ক্ষতি সাধনের আশঙ্কা করছেন কৃষকরা।
এ ছাড়া উপজেলার বিভিন্ন গ্রামে এ মৌসুমে সবজির চাষ হয়ে থাকে। এখন সবজির বীজতলার তৈরির কাজ চলছিল। এমন সময় অব্যাহত বৃষ্টিতে অনেক বীজতলায় জলাবদ্ধতা দেখা দিয়েছে।
খোঁজ নিয়ে দেখা গেছে বাতাসের সাথে বৃষ্টিতে রোপা আমনের ক্ষেতে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়েছে। পানিতে শুয়ে পড়েছে কৃষকের  পাকা ও আধা পাকা ধান। দুঃচিন্তায় পড়েছে অনেক কৃষক।
উপজেলার কচুয়াকাঠী গ্রামের কৃষক জামাল হোসেন জানান, তার দুই বিঘা জমিতে রোপা আমনের আবাদ করেছিল। ধান শীর্ষ বের হয়েছে। এসময় বৃষ্টিতে জমির ধান পানিতে পড়ে গেছে। এখন ধানের ফলন হবে না মর্মে সে চিন্তিত হয়ে পড়েছে।
উপজেলার মুক্তারকাঠী গ্রামের বাসিন্দা সাইফুল ইসলাম এক একর জমিতে আমন আবাদ করেন। এবার আমনের ফলন ভালো হওয়ার আশা ছিল। তবে বৃষ্টির কারণে তাঁর খেতে পানি জমায় সব ফসল নষ্ট হয়ে যাবে বলে আশঙ্কা করছেন তিনি।
উপজেলা কৃষি অফিস সূত্র জানায়, উপজেলায়  ৪ হাজার ৪৩০ হেক্টর জমিতে আমন চাষ হয়েছে। জাওয়াদের প্রভাবে যে সকল ধান ক্ষেতের ক্ষতির আশঙ্কা করা হয়েছে প্রকৃত পক্ষে উল্লেখ যোগ্য ক্ষতি হবে না বলে তারা মনে করেন।
উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আলী আজিম শরীফ বলেন, ঘূণিঝড় ‘জাওয়াদ’র খবর পেয়েই কৃষকদের পাকা ধান দ্রুত কেটে ফেলার পরামর্শ দেওয়া হয়েছিল। তারা এ পর্যন্ত ২৯০ হেক্টর জমির পাকা ধান কেটে ফেলেছে। আর যদি বৃষ্টি না হয় তাহলে আমন ধানের তেমন কোনো ক্ষতি হবে না।

আরএইচআর/এমআর

বাংলাদেশ সময়: ২১:১৯:২৮ ● ৮৪ বার পঠিত




পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)

আর্কাইভ