ঘূর্ণিঝড় ফণি’র প্রভাবে বঙ্গোপসাগর উত্তাল

প্রথম পাতা » আবহাওয়া » ঘূর্ণিঝড় ফণি’র প্রভাবে বঙ্গোপসাগর উত্তাল
বৃহস্পতিবার ● ২ মে ২০১৯


প্রতীকী ছবি

কুয়াকাটা সাগরকন্যা অফিস॥

ঘূর্ণিঝড় ফণি ও আবশ্যার জো’র প্রভাবে কুয়াকাটা সংলগ্ন বঙ্গোপসাগর উত্তাল রয়েছে। উপকুল জুড়ে বইছে তীব্র তাপদাহ। পায়রা বন্দরকে ৭ নম্বর বিপদ সঙ্গেত দেখিয়ে যাওয়া স্থানীয় প্রশাসন ও ঘূর্ণিঝড় প্রস্তুতি কমিটি সর্তকতামূলক প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছে। স্কুল কলেজ বন্ধ রেখে জনগনের জান মালের নিরাপত্তায় সাইক্লোন শেল্টারগুলো উন্মুক্ত রাখা হয়েছে। পটুয়াখালী জেলা প্রশাসনের দরবার হলে ঘূর্ণিঝড় ‘ফনি’ ক্ষয়ক্ষতি মোকাবেলায় জেলা দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির সমন্বয় কয়েক দফা প্রস্তুতিমূলক সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
কলাপাড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার  মো. তানভীর রহমান জানিয়েছেন, দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটি জরুরি সভা করেছে। কন্টোল রুম খোলা হয়েছে।সরকারি সকল কর্মকর্তাদের সাপ্তাহিক ছুটি স্থগিত করা হয়েছে। বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত সকল মাছ ধরার ট্রলারকে নিরাপদে আশ্রয় নেয়ার জন্য নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। উপজেলার প্রতিটি ইউনিয়নে দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির সভার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। মেডিকেল টিম গঠন করা হয়েছে। রেডক্রিসেন্ট এর ১৫৮ ইউনিটকে পরবর্তী নির্দেশনার জন্য প্রস্তুুত রাখা হয়েছে। শুকনো খাবার ও বিশুদ্ধ পানি সরবরাহের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। বেড়িবাঁধের বাইরের এবং বিধ্বস্ত জনপদ লালুয়ার চারিপাড়া, ধানখালীর দেবপুরসহ নিজামপুর এলাকার জনগণকে বিশেষ সতর্ক থাকার জন্য নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। ঘর্ণিঝড় ফণির প্রস্তুুতিমূলক সভায় উপজেলা নির্বাহী অফিসের   কর্মকর্তাসহ এনজিও কর্মকর্তাগণ, রেডক্রিসেন্ট সোসাইটির টিম লিডারগণ উপস্থিত ছিলেন। ঘুর্ণিঝড় ফণি আঘাত হানতে পারে এমন শঙ্কায় পায়রা বন্দরসহ উপকূলীয় এলাকার মানুষের মধ্যে এক ধরনের উৎকন্ঠা বিরাজ করছে। এছাড়া জেলা খাদ্য বিভাগ এবং ফায়ার সার্ভিসকে দুর্যোগ পরবর্তী যে কোন পরিস্থিতি মোকাবেলায় প্রয়োহনীয় প্রস্তুতি গ্রহণের জন্য নির্দেশনা দেয়া হয়। পটুয়াখালী জেলার বিভিন্ন উপজেলার সিপিপি ভলান্টিয়ারদের সজাগ দৃষ্টি রাখার জন্য নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

কেএআর/এমআর

বাংলাদেশ সময়: ১৯:৩৩:২৩ ● ৪৬৮ বার পঠিত




পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)

আর্কাইভ