গৌরনদীতে সুদী মহাজনের চাপে মাহিন্দ্রা মালিকের আত্মহত্যা!

প্রথম পাতা » বরিশাল » গৌরনদীতে সুদী মহাজনের চাপে মাহিন্দ্রা মালিকের আত্মহত্যা!
সোমবার ● ২৭ জুন ২০২২


গৌরনদীতে সুদী মহাজনের চাপে মাহিন্দ্রা মালিকের আত্মহত্যা!

গৌরনদী (বরিশাল) সাগরকন্যা প্রতিনিধি॥

বরিশালের গৌরনদীতে সুদী মহাজনদের (সুদ ব্যবসায়ীদের) শারীরিক নির্যাতনের অপমান সইতে না পেয়ে কীটনাশক পানে মো. কালাম সেরনিয়াবাত (৪৫) নামে এক মাহিন্দ্রার মালিক আত্মহত্যা করেছে। রোববার বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে উপজেলার টরকী বাসস্ট্যান্ড এলাকায় জয়নাল শরীফের হোটেলের সামনে কীটনাশক পানের এ ঘটনা ঘটে।  এ ব্যাপারে সুদী ৪মহাজনকে আসামি করে সোমবার বিকালে গৌরনদী থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে। সে (কালাম) উপজেলার বার্থী ইউনিয়নের উত্তর মাদ্রা গ্রামের মৃত হাসেম সেরনিয়াবাতের ছেলে ও টরকী বাসস্ট্যান্ড সংলগ্ন ছলেমান হাওলাদারের বাসার ভাড়াটিয়া।
কীটনাশক পানে মারা যাওয়া কালাম সেরনিয়াবাতের ছেলে রাজন সেরনিয়াবাত (২০) অভিযোগ করে বলেন, আমার বাবা (পিতা) কালাম সেরনিয়াবাত কয়েকজন সুদী মহাজনের কাছ থেকে চড়া সুদে টাকা এনে সুদে জর্জরিত হয়ে পড়েন। উপজেলার লাখেরাজ কসবা এলকার সুদ ব্যবসায়ী আহাদুল হাওলাদারের কাছ থেকে গত ৫/৬ মাস পূর্বে আমার বাবা কালাম  ৫০ হাজার টাকা প্রতিদিন এক হাজার টাকা সুদ দেওয়ার কথা বলে এনেছিল। প্রতিদিন এক হাজার টাকা করে সুদ দেয়ায় বাবা তাকে (আহাদুল) এ পর্যন্ত লক্ষাধিক টাকা সুদ দিয়েছেন। বর্তমানে সুদখোর আহাদুল সুদাসলসহ বাবার কাছে ৯৫হাজার টাকা দাবি করে আসছে।  সুদের টাকা দিতে না পারায় সুদী মহাজন আহাদুল ও তার স্ত্রী ছবি বেগম গত শনিবার দুপুরে টরকী বাসস্ট্যান্ড এলাকায় জয়নাল শরীফের দোকানের সামনে বসে বাবা কালামকে বেদম মারপিট করে জোড়পূর্বক সাদা স্ট্যাম্পে বাবার স্বাক্ষর নেয়।
তিনি আরও অভিযোগ করে বলেন, মাদারীপুরের ডাসার থানার নবগ্রাম এলাকার সুদী মহাজন  (সুদখোর) কালাম সরদারকে ২০ হাজার টাকায় বাবা প্রতি সপ্তাহে ১৬ শত টাকা করে সুদ দিতেন। কালাম সরদার সুদাসলের ৩০ হাজার টাকার দাবিতে রোববার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে ভূরঘাটা বাসস্ট্যান্ডে বাবাকে (কালাম) মারধর করে এবং তার মাহিন্দ্রা রেখে দেয়। এরপর বাবা টরকী বাসসন্ট্যান্ডে ফিরে আসেন। সুদখোর আহাদুল হাওলাদার ও কালাম সরদারের শারীরিক নির্যাতনের অপমান সইতে না পেয়ে রোববার বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে টরকী বাসস্ট্যান্ডের জয়নাল শরীফের হোটেলের সামনে বসে কীটনাশক পান করে অসুস্থ হয়ে পড়েন। খবর পেয়ে স্বজনরা গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় বাবাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে (বাবা) বরিশাল শের-ই- বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করেন। মুমূর্ষু অবস্থায় বাবাকে (কালাম) বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। সোমবার দুপুরে বরিশাল শেবাচিম হাসপাতাল মর্গে বাবার (কালাম) লাশের ময়না তদন্ত সম্পœন হয়েছে।
তিনি আরও বলেন, আমার বাবার (কালাম) চারটি মাহিন্দ্রার মালিক ছিলেন।  সুদাসল টাকার দাবিতে সুদী মহাজনরা বাবার কাছ থেকে চারটি মাহিন্দ্রাই জোরপূর্বক নিয়ে গেছে।
গৌরনদী থানার ওসি আফজাল হোসেন বলেন, এ ব্যাপারে আমরা একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া  হবে।

বিকেএস/এমআর

বাংলাদেশ সময়: ২২:০১:২৩ ● ৩৫ বার পঠিত




পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)

আর্কাইভ