আমতলীতে বোরো ধানের বাম্পার ফলন

প্রথম পাতা » বরগুনা » আমতলীতে বোরো ধানের বাম্পার ফলন
বৃহস্পতিবার ● ২৮ এপ্রিল ২০২২


আমতলীতে বোরো ধানের বাম্পার ফলন

আমতলী (বরগুনা) সাগরকন্যা প্রতিনিধি॥

বরগুনার আমতলীতে এ বছর বোরো ধানের বাম্পার ফলন হয়েছে। বাজারে ধানের দাম ভালো থাকায় খরচ উঠে দ্বিগুন লাভবান হবে কৃষকরা। কৃষকরা বলেন, বাজারে ধানের দাম ভালো থাকায় বেশ লাভবান হওয়ার আশা করছেন তারা। উপজেলা কৃষি অফিসার সিএম রেজাউল করিম বলেন, বোরো ধানের বাম্পার ফলন হয়েছে। বাজারে ধানের দামও ভালো। এতে কৃষকরা অধিক লাভবান হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।
উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানাগেছে, এ বছর আমতলীতে বোরো ধান চাষের লক্ষমাত্রা ধরা হয়েছিল ২ হাজার ৬’শ  হেক্টর। কিন্তু ওই লক্ষমাত্রা অর্জিত হয়ে ২ হাজার ৭’শ ৫০ হেক্টর জমিতে আবাদ হয়েছে । বোরো ধান চাষের উপযুক্ত সময় মধ্য কার্তিক থেকে শুরু করে ফাল্গুন মাসের মাঝামাঝি পর্যন্ত। বীজতলা থেকে শুরু করে পাঁচ মাসের মধ্যে উচ্চ ফলনশীল বোরো ধানের ফলন আসে। এ বছর অনাবৃষ্টির কারনে সেচ দিয়ে কৃষককের খরচ বেশী হয়েছে। উচ্চ ফলনশীল জাতের বিরি-২৮, বিরি-২৯,বিরি-৪৭ ও বিরি-৬৭, বিরি-৭৪, বিরি-৮৮ ও হাইব্রীড এসএল-৮ এবং ইস্পাহানী-২ ধান চাষ করছেন কৃষকরা। বর্তমানে কৃষকরা ধান কাটায় ব্যস্ত সময় পার করছেন। বাজারে ধানের দাম অনেক ভালো। শুরুতেই বাজারে প্রতিমণ ধান ৯৫০ থেকে ১০০০ টাকা বিক্রি হয়েছে। বর্তমান বাজারে চিকন ধান ৭৮০ থেকে ৯০০ টাকা এবং মোটা ধান ৭২০ টাকা থেকে ৮২০ মণ দরে বিক্রি হচ্ছে।  কৃষকরা জানান, এক হেক্টর জমিতে উৎপাদন খরচ ৬০ হাজার টাকা। ওই জমিতে ধান উৎপাদন হয়েছে গড়ে ৬ মেট্রিক টন।  বাজারে প্রতিমণ ধান ৭২০-৮২০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।  সেই হিসেবে ওই জমিতে অন্তত ১ লক্ষ টাকা আয় হবে। বাজারে ধানের দাম ভালো থাকায় এ বছর ভালো লাভবান হবে বলে আশা করছেন কৃষকরা।
বৃহস্পতিবার সরেজমিনে ঘুরে দেখাগেছে, উপজেলার কুকুয়া, হলদিয়া, চাওড়া, আমতলী সদর ও আড়পাঙ্গাশিয়া ইউনিয়নের বিভিন্ন স্থানে বোরো ধান কাটায় ব্যস্ত সময় পাড় করছে কৃষকরা।
কাউনিয়া গ্রামে কৃষক নজরুল ইসলাম বলেন, ১৫ হাজার টাকা ব্যয়ে ৮০ শতাংশ জমিতে রোবো চাষ করেনি।  ফলন ভালো হয়েছে। বাজারে ধানের দামও ভালো। আশা করি খরচ উঠে দ্বিগুন লাভ হবো।
ঘোপখালী গ্রামের আফজাল শরীফ বলেন, এ বছর বোরো ধানের বাম্পার ফলন হয়েছে এবং বাজারে ধানের দামও ভালো। আশা করি বেশ ভালোই লাভবান হবো।
উত্তর তক্তাবুনিয়া গ্রামের আরিফ মৃধা বলেন, ৫২ হাজার টাকা খরচ করে তিন একর জমিতে বোরো ধান চাষ করেছি। ফলন ভালো হয়েছে। আশা করি এক লক্ষ টাকার বেশী বিক্রি করতে পারবো।
আমতলী উপজেলা আড়ৎদার সমিতির  সাধারণ সম্পাদক মোঃ জাকির হোসেন বলেন, বাজারে মোটা ও চিকন দুই ধরনের ধান রয়েছে। চিকন ৭৮০ থেকে ৯০০ টাকা এবং মোটা ধান ৭২০ থেকে ৮২০ টাকা মণ ধরে বিক্রি হচ্ছে। ধানের দাম ভালো থাকায় কৃষকরা অনেক লাভবান হবে।
আমতলী উপজেলা কৃষি অফিসার সিএম রেজাউল করিম বলেন, বোরো ধানের বাম্পার ফলন হয়েছে। বাজারে ধানের দাম ভালো থাকায় কৃষকরা বেশ লাভবান হবে।

এমএইচকে/এমআর

বাংলাদেশ সময়: ২৩:৩৬:৫৯ ● ৪০ বার পঠিত




পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)

আর্কাইভ