চরফ্যাশন দু’গ্রুপের সংঘর্ষে পুলিশসহ আহত অর্ধশতাধিক

প্রথম পাতা » ভোলা » চরফ্যাশন দু’গ্রুপের সংঘর্ষে পুলিশসহ আহত অর্ধশতাধিক
শুক্রবার ● ১৩ ডিসেম্বর ২০১৯


চরফ্যাশন দু’গ্রুপের সংঘর্ষে পুলিশসহ আহত অর্ধশতাধিক

চরফ্যাশর (ভোলা) সাগরকন্যা প্রতিনিধি॥

চরফ্যাশন উপজেলা দুলারহাট থানার নুরাবাদ ইউনিয়ন দু’ চেয়ারম্যান নৌকা ও স্বতন্ত্র প্রার্থীর গ্রুপের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া দুলাহাট থানা ৬পুলিশসহ অর্ধশতাদিক জন আহত হয়েছে। নির্বাচনী রির্টানিং অফিসার ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে দু’প্রাথীকে তিন দিনের মধ্যে জবাব চেয়ে কারণ দর্শানোর নোটিশ দিয়েছে।
শুক্রবার (১৩ ডিসেম্বর) সকাল সাড়ে ৯টায় থেকে ১১টায় পর্যন্ত দফায় দফায় দুলারহাট বাজারের এই হামলার ঘটনা ঘটে। আহদেরকে স্থানীরা উদ্ধার করে চরফ্যাশন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করানো হয়েছে। মারাত্মক জখম উভয় গ্রুপের তিন জনকে উন্নত চিকিৎসার জন্যে বরিশাল সেবাচিম হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। পুলিশের অবহেলা এই হামলা পাল্টা হামলা ঘটনাটি ঘটেছে বলে স্থানীয়দের অভিযোগ।
স্থানীয় ও হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, শুক্রবার সকাল ১০টায় নৌকা প্রতিকের প্রার্থী সাবেক চেয়ারম্যান মোস্তাফিজুর রহমান এর কর্মীদের হাতে দুলার হাট বাজারের পশ্চিম মাথায় স্বতন্ত্র স্বতন্ত্র প্রার্থী আনারস মার্কার প্রতিক আনোয়ার হোসেন এর জনৈক কর্মীকে মারধর করে। এর সূত্র ধরে স্বতন্ত্র প্রার্থীও কর্মী সমর্থকেরা প্রতিপক্ষদেরকে দুলারহাট থানা বাজার থেকে ধাওয়া করলে প্রতিপক্ষ গ্রুপ লাঠি সোঠা ও দেশীয় অস্ত্র নিয়ে ধাওয়া করলে পাল্টাপাল্টি সংঘর্ষ বাধে।  এতে উভয় গ্রুপের দুলারহাট থানা যুবলীগ আহবায়ক ইউসুফ পন্ডিত(৪০),যুগ্ন আহবায়ক আবুল বাশার পন্ডিত(৪০),মোস্তাফ হাওলাদার(৫০),যুবলীগ নেতা ফারুক মাষ্টার(৩৮), ছাত্রলীগ সহ-সভাপতি রিয়াজুল ইসলাম কাজী(৩০),প্রার্থীর বড় ভাই হাফেজ জামাল উদ্দিন(৫০),নুরাবাদ ইউনিয়ন শ্রমিক লীগ সভাপতি আবুল বাসার বাসু(৪০),সাংগঠনিক সম্পাদক আঃ রাজ্জাক(৩৫), মো. রুবেল(২৪), মো. নুুরুল ইসলাম চকিদার(৫২), স্বপন(২৪),ইউনিয়ন কৃষকলীগ সহ-সভাপতি আবুল হাসেম কাদী(৫৫),জসিম উদ্দিন(২৮)মো. শাহাবুদ্দিন (৩৫), রাকিব হাসান(৩২)সহ অর্ধশত আহত হয়। এদিকে দুলারহাট থানা ওসির দাবী পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে আমার ৬পুলিশ সদস্য আহত হয়েছে। তারা হলেন- তাদের অবস্থা আসংখ্যা জনক দেখে উন্নত চিকিৎসার জন্যে বরিশাল প্রেরণ করা হয় । এব্যাপারের নৌকার প্রার্থী মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, স্বতন্ত্র প্রার্থীর লোকজন দুলারহাট থানা বাজারের আমার দলীয় অফিস কক্ষে নেতাকর্মী ও সমর্থকদের উপর হামলা চালায়। স্বতন্ত্র প্রার্থী আনোয়ার হোসেন বলেন, শুক্রবার সকাল সাড়ে ৯টায় আমার দু’জন মহিলা কর্মী প্রতিপক্ষ প্রার্থীর ৩নং ওয়ার্ডে ভোট চাইতে গেলে তাদের উপর হামলা করে। আমি শূুেন ঘটনাস্থলে গেলে আমার উপরেও হামলা চালায়। ওই ওয়ার্ডে গাঁজা ইয়াবা ও সন্ত্রাসীদেরকে তিনি (আমার প্রতিপক্ষ মোস্তাফিজ)লালন-পালন করেন।
দুলারহাট থানা ওসি মিজানুর রহমান পাটওয়ারী, বলেন, দু’গ্রুপে নির্বাচনী সহিংসতা নিয়ন্ত্রণে রাখতে আমাদের কোন ত্রুটি ছিলো না। ইউনিয়ন নির্বাচন রির্টানিং অফিসার রফিকুল ইসলাম বলেন, সহিংসতার ঘটনাকে কেন্দ্র কওে নৌকা প্রতিকের মোস্তাফিজুর রহমান ও আনারস প্রতিকের আনোয়ার হোসেনকে কারণ দর্শাণোর নোটিশ করা হয়েছে। তিন দিনের বিতরে জবাব দিতে বলা হয়েছে। চরফ্যাশন উপজেলা নিবাহী কর্মকর্র্তা মো.রুহুল আমিন বলেন সহিংসতার কথা শুনে দ্রুত ঘটনাস্থল পরিদর্শন করছি। ঘটনাস্থল এখন বিকেল  সাড়ে ৪টায় নাগাদ শান্ত পরিবেশে রয়েছে।

এএইচ/এমআর

বাংলাদেশ সময়: ২২:১৭:১২ ● ২৫৮ বার পঠিত




পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)

আর্কাইভ