ফুটবলার শিপন দাসআমতলীতে সংঘর্ষ থামাতে গিয়ে হামলার শিকার!

প্রথম পাতা » বরগুনা » ফুটবলার শিপন দাসআমতলীতে সংঘর্ষ থামাতে গিয়ে হামলার শিকার!
শনিবার ● ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২৩


আমতলীতে সংঘর্ষ থামাতে গিয়ে হামলার শিকার!আমতলীতে সংঘর্ষ থামাতে গিয়ে হামলার শিকার!

আমতলী (বরগুনা) সাগরকন্যা প্রতিনিধি॥

বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ ফুটবল খেলায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতে পুরুস্কার প্রাপ্ত খেলোয়ার শিপন দাস সংঘর্ষ নিবৃত করতে গিয়ে আমতলী সরকারী কলেজের পরীক্ষার্থীদের হামলার শিকার হয়েছেন। হামলায় তার মাথায় গুরুতর জখম হয়। আহত শিপনকে বন্ধুরা উদ্ধার করে আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। ওই হাসপাতালের চিকিৎসক তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে প্রেরন করেছে। এ ঘটনার সাথে জড়িত সন্দেহে আটজনকে পুলিশ হেফাজকে আনা হয়েছে। ঘটনা ঘটেছে শনিবার বেলা সাড়ে ১১ টার দিকে আমতলী সরকারী কলেজ প্রাঙ্গণে।
জানাগেছে, আমতলী সরকারী কলেজের কারিগরি শাখার একাদ্বশ শ্রেনীর ছাত্র আব্দুল্লাহ একই কলেজের দ্বাদশ শ্রেনীর পরীক্ষার্থী রতনের কাছে ৬০০ টাকা পায়। এ টাকা নিয়ে শুক্রবার ব্যবহারিক পরীক্ষা শুরু হওয়ার পুর্ব মুহুর্তে আব্দুল্লাহ ও রতনের মধ্যে কথাকাটাকাটি হয়। এক পর্যায় আব্দুল্লাহ ও রতনের সহপাঠিদের মধ্যে ধস্তাধস্তি ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে শনিবার বেলা সাড়ে ১১ টার দিকে ওই কলেজ প্রাঙ্গণে আবারো তারা সংঘর্ষে জড়িয়ে পরে। ওই সময় বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ ফুটবল খেলায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতে পুরুস্কার প্রাপ্ত খেলোয়ার শিপন দাস কলেজে তার এইচএসসি পরীক্ষা পাশের কাগজপত্র আনতে যাচ্ছিল। দুই গ্রুপের সংঘর্ষের ঘটনা দেখে তিনি দুই পক্ষকে নিবৃত করতে ঘটনাস্থলে যায়। এতে তিনি তাদের হামলার শিকার হন। তাদের হামলায় শিপন দাসের মাথায় গুরুতর জখম হয়। খবর পেয়ে তার বন্ধুরা তাকে উদ্ধার করে আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেকেè নিয়ে যায়। ওই হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডাঃ মেহেরীন আশ্রাফ তাকে  উন্নত চিকিৎসার জন্য বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে প্রেরন করেছে। আব্দুল্লাহ ও রতনের এ ঘটনায় শনিবার সরকারী কলেজ প্রাঙ্গণ, কৃষি রেডিও প্রাঙ্গণ ও বটতলায় দফায় দফায় সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। তবে এতে কেউ গুরুতর আহত হয়নি। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থনে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে রাকিবুল হাসান, শ্রাবন দাস, লিমন, মেহেদী হাসান, নিলয় চন্দ্র দাস, হৃদয় বয়াতি, হাসান চৌকিদার ও রাফিউল নামের আটজনকে পুলিশ হেফাজতে আনা হয়েছে।
শিপনের বন্ধু জয় ও স্বাধীন গাজী বলেন, ফুটবল খেলোয়ার শিহাব একজন ভালো মানের খেলোয়ার। ভালো খেলার জন্য বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ ফুলবল খেলায় প্রধানমন্ত্রী  তাকে পুরুস্কার দিয়েছেন। তারা আরো বলেন, গরিব পরিবারের সন্তান শিপন দাসের খেলার আয় দিয়ে তার সংসার চলে। এখন চিকিৎসা করানোর মত টাকা তার নেই।
প্রত্যক্ষদর্শী কয়েকজন বলেন, গত দুইদিন ধরে কলেজর কারিগড়ি শাখার একাদ্বশ শ্রেনীর পরীক্ষার্থী আব্দুল্লাহ ও দ্বাদশ শ্রেনীর পরীক্ষার্থী রতনের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। ওই সংঘর্ষ ছাড়াতে গিয়ে শিপন দাস তাদের হামলার শিকার হয়েছে।
আহত শিপন দাস বলেন, আমতলী সরকারী কলেজে এইচএসসি পরীক্ষা পাশের কাগজপত্র আনতে কলেজে যাই। কলেজ প্রাঙ্গণে দুই ছাত্র গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ চলছিল। আমি তাদের নিবৃত করতে গেলে তারা আমাকে পাইপ দিয়ে পিটিয়ে গুরুতর জখম করেছে। আমি সংঘর্ষের বিষয়ে কিছুই জানিনা। তাদের ছাড়াতে গিয়ে আমি তাদের হামলার শিকার হয়েছি।
আব্দুল্লাহর সহপাঠী হাসান চৌকিদার বলেন, আব্দুল্লাহ দ্বাদশ শ্রেনীর রতনের কাছে ৬০০ টাকা পায়। ওই টাকা চাইতে গিয়ে দুই পক্ষই সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে দুই দিন ধরে দফায় দফায় সংঘর্ষ হয়েছে।
আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডাঃ মেহেরীন আশ্রাফ বলেন, শিপন দাসের মাথায় গুরুতর জখম হয়েছে। তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।
আমতলী থানার ওসি কাজী সাখাওয়াত হোসেন তপু বলেন, পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে এনেছে। ফুটবল খেলোয়ার শিপন দাসের চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হয়। ঘটনার সাথে জড়িত সন্দেহে আটজনতে পুলিশ হেফাজতে আনা হয়েছে।

এমএইচকে/এমআর

বাংলাদেশ সময়: ২১:৫৫:৪৬ ● ১২৫ বার পঠিত




পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)

আর্কাইভ