আমতলীতে বেড়েই চলছে ডায়েরীয়ার সংক্রমণ!

প্রথম পাতা » বরগুনা » আমতলীতে বেড়েই চলছে ডায়েরীয়ার সংক্রমণ!
মঙ্গলবার ● ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৩


আমতলীতে বেড়েই চলছে ডায়েরীয়ার সংক্রমণ!

আমতলী (বরগুনা) সাগরকন্যা প্রতিনিধি॥

আমতলী উপজেলায় ডায়েরীয়ার প্রকোপ দেখা দিয়েছে। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের রোগীদের সামাল দিতে হিমশীম খেতে হচ্ছে। স্থান সংকুলণ না হওয়ায় রোগীদের বারান্দায় বেড দেয়া হয়েছে। ৬ জনের বেডে ১৫ জনের চিকিৎসা চলছে। এতে রোগীদের সমস্যা হচ্ছে।  দ্রুত বেড বৃদ্ধির দাবী জানিয়েছেন রোগী ও তার স্বজনরা।
জানাগেছে, ফেব্রুয়ারী মাসের ২৬ দিনে একশত ৩২ জন ডায়েরীয়া আক্রান্ত রোগী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হয়েছে। এর মধ্যে গত এক সপ্তাহে অর্ধেক। চিকিৎসক ও স্বাস্থ্য সেবিকাদের রোগীদের সামাল দিতে হিমশীম খেতে হচ্ছে। ৬ শয্যা ডায়েরীয়া রোগীর বেডের স্থলে ১৫ জন রোগী হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছে। স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের বারান্দায় রোগীদের বেড দেয়া হয়েছে। রোগীর স্বজনদের অভিযোগ হাসপাতাল থেকে এন্টিবায়োটিক ও কলেরা স্যালাইন সরবরাহ করা হলেও বাহির থেকে ঔষুধ কিনতে হচ্ছে এবং হাসপাতালের বারান্দায় বেড দেয়া হয়েছে। এতে রোগীদের সমস্যা হচ্ছে বলে জানান তারা। এছাড়াও শত শত রোগী কমিউনিটি ক্লিনিক ও  স্থানীয় চিকিৎসকের কাছ থেকে চিকিৎসা নিচ্ছে বলে নির্ভরযোগ্য সুত্রে জানা গেছে।
সোমবার আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ঘুরে দেখাগেছে, স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে বারান্দার বেডে রোগীরা চিকিৎসা নিচ্ছে। হাসপাতালে বেডে ৬ জন এবং বারান্দায় ৯ জন রোগীর চিকিৎসা চলছে।
ডায়েরীয় আক্রান্ত রোগী বরিউল ইসলাম  বলেন, হাসপাতাল থেকে এন্টিবায়েটিক ও স্যালাইন দেওয়া হচ্ছে তারপরও বাহির থেকে ঔষুধ কিনতে হয়।  তিনি আরো বলেন, বেড না থাকায় বারান্দায় বেড পেতে চিকিৎসা নিচ্ছি। দ্রুত হাসপাতালে বেড বাড়ানো প্রয়োজন।
উপজেলার ঘোপখালী গ্রামের সুমি আক্তার বলেন, তিন দিন আগে মেয়ে নাদিয়াকে হাসপাতালে ভর্তি করেছি। এখন কিছুটা সুস্থ্য।
পাতাকাটা  গ্রামের রোগী সাগরিকা বলেন, এন্টিবায়োটিক এবং আইভি স্যালাইন ছাড়া হাসপাতাল থেকে কিছুই পাচ্ছি না।
পশ্চিম চিলা গ্রামের জহিরুল ইসলাম বলেন, ডায়েরিয়া রোগে আক্রান্ত ছেলে মাহিনকে হাসপাতালে দুইদিন আগে ভর্তি করেছি।  হাসপাতালে বেড না থাকায় বাহিরের বেডে ছেলেকে নিয়ে থাকছি। এতে সমস্যা হচ্ছে। হাসপাতালে আরো ডায়েরিয়া বেড বৃদ্ধি করা প্রয়োজন।
রোগী আব্দুস ছত্তার বলেন, রবিবার রাতে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছি। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ স্যালাইন দিয়েছেন।
আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ আব্দুল মুনয়েম সাদ বলেন, ঋতু পরিবর্তনের কারনে ডায়েরীয়ার প্রকোপ দেখা দিয়েছে। হাসপাতালের স্টোরে পর্যাপ্ত এন্টিবায়োটিক ও আইভি স্যালাইন রয়েছে। ডায়েরিয়া রোগী সামাল দিতে হাসপাতালের ডাক্তার ও নার্সরা প্রস্তুত রাখা হয়েছে।

এমএইচকে/এমআর

বাংলাদেশ সময়: ০:০৬:১৩ ● ১০২ বার পঠিত




পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)

আর্কাইভ