চরফ্যাশনে জ্বীন’র নামে প্রতারণা, গ্রেফতার-২

প্রথম পাতা » ব্রেকিং নিউজ » চরফ্যাশনে জ্বীন’র নামে প্রতারণা, গ্রেফতার-২
বুধবার ● ১২ জানুয়ারী ২০২২


চরফ্যাশনে জ্বীন’র নামে  প্রতারণা, গ্রেফতার-২

চরফ্যাশন (ভোলা) সাগরকন্যা প্রতিনিধি॥

চরফ্যাশন উপজেলার শশীভূষণ থানার জাহানপুর ইউনিয়ন ৪নং ওয়ার্ডের ঝাড়- ফুক প্রদানকারী ২ প্রতারককে আটক করেছে পুলিশ। তাদেরকে বুধবার (১২ জানুয়ারি) জেল-হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।
মামলা ও স্থানীয় সূত্রে জানাগেছে, এই প্রতারক চক্রের সদস্য বিল্লাল ও তার সহযোাগি ছোটভাই জয়নাল আবেদীন গ্রামঞ্চলে এবং বাড়ীতে বসে পানি পড়া, তাবিজ কবজ, সুতা পড়া ও তাবিজ-কবজ উত্তোলন করে জ্বিন-পরির মাধ্যমে এমন অভিযোগ উঠেছে । প্রতারণার মাধ্যমে হাজার হাজার টাকা হাতিয়ে নিচ্ছেন এই প্রতারক ও ভন্ড বিল্লাল খন্দকার।
বিল্লাল উপজেলার জাহানপুর ইউনিয়ন ৪নং ওয়ার্ডেও মৃতঃ আলী খন্দকারের বড় ছেলে। এই ভন্ডপ্রতারক বিল্লালের কাছে প্রতিদিন দূর-দূরান্ত থেকে বহু নারী-পুরুষ এসে প্রতারণার শিকার হচ্ছেন। সেও বিভিন্ন ছলচাতুরির মাধ্যমে হাতিয়ে নিচ্ছে নগদ টাকা ও স্বর্ণ গয়না। আর এসব প্রতারণা করে খন্দকার বিল্লাল করেছেন সম্পদের পাহাড়। প্রতারণা করে টাকা নেওয়ার পরে কেউ ভয়ে তার বিরুদ্ধে অভিযোগ করেন না বলে জানান ভুক্তভোগীরা।
স্থানীয় ভুক্তভোগী নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক সাগরকন্যাকে জানান, আমার শারীরিক কিছু অসুবিধা নিয়ে তার কাছে গেলে তিনি ১৬হাজার টাকা চুক্তিতে আমার শারীরিক অসুবিধা ভালো করে দেবেন বলে জানান। কিন্তু এই প্রতারক বিল্লালকে ১৬হাজার টাকা দিলেও কোন সুফল পাননি । রহিমা নামের একজন ভুক্তভোগী নারী জানান, কিছুদিন আগে এই প্রতারক আমার মানসিক ভারসাম্যহীন মেয়েকে নিয়ে আসলে তিনি ২০হাজার টাকার বিনিময়ে সুস্থ করে দিবেন বলে চুক্তি করে। কিন্তু ২০ হাজার টাকা দিলেও আমার মেয়ে তো সুস্থ হয় নাই।
স্থানীয় শাহাবুদ্দিন নামের জনৈক ব্যক্তি বলেন, আমি রোগী সেজে বিল্লালকে বলে, আমার তিন বছর আগে বিবাহ হয়েছে কিন্তু সন্তান হয়না। প্রতারক বিল্লাল তাঁর কাছে ১৬’শ’১টাকা ফি চাইলেন এরপর তার প্রতারণার মূল কৌশল ঘরের মধ্যে চাদও টানিয়ে অন্ধকাওে জ¦ীনপরি হাজির করার মাধ্যমে তাকে বলেন আপনার সন্তান হওয়ার তদবির নিতে হলে ২২হাজার ৬’শত’৫৭টাকা লাগবে। অথচ ওই শাহাবুদ্দিন ১বছর ৯মাস বয়সের একটি কন্যা সন্তান রয়েছে।
স্থানীয় গণমাধ্যমকর্মীরা গেলে সংঘবদ্ধচক্র সংবাদকর্মীদের ওপরহামলা চালিয়ে সংবাদকর্মীদের মোবাইল,ক্যামেরা,স্বর্ণের চেইন,ও প্রেসের আইডিকার্ড ছিনিয়ে নেন। স্থানীয় লোকজন এসে সংবাদকর্মীদের উদ্ধার করেন। প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করেন। পরে শশীভূষণ থানা পুলিশ প্রতারক বিল্লালসহ তার ছোট ভাই জয়নাল আবেদীনকে গ্রেফতার করে জেল-হাজতে প্রেরণ করেন।
এ বিষয়ে শশীভূষণ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মিজানুর রহমান পাটোয়ারী জানান, প্রতারক বিল্লাল বহুদিন যাবত কবিরাজি (খনকারির)নামে প্রতারণা করে আসছে এমন অভিযোগের ভিত্তিতে প্রতারক বিল্লালসহ তার সহযোগী ছোটভাই জয়নালকে গ্রেফতার করে বুধবার জেলহাজতে প্রেরণ করেছি।

এএইচ/এমআর

বাংলাদেশ সময়: ২৩:২৪:৪৯ ● ৩১৭ বার পঠিত




পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)

আর্কাইভ