কুয়াকাটা সৈকতে বেড়িবাঁধ পরিদশর্নে মন্ত্রণালয়ের টিম

প্রথম পাতা » কুয়াকাটা » কুয়াকাটা সৈকতে বেড়িবাঁধ পরিদশর্নে মন্ত্রণালয়ের টিম
শনিবার ● ৫ জুন ২০২১


কুয়াকাটা সৈকতে বেড়িবাঁধ পরিদশর্নে মন্ত্রণালয়ের টিম

কুয়াকাটা সাগরকন্যা অফিস॥

কুয়াকাটায় উপকূলীয় বাঁধ উন্নয়ন প্রকল্পের অধীনে বিশ্ব ব্যাংকের অর্থায়নে চীনা ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান চঙ্কিং ইন্টারন্যাশনাল কন্সট্রাকশন কর্পোরেশনের চলমান কাজের অনিয়ম তদন্তে সরেজমিনে পরিদর্শন করেছেন পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মোঃ রোকন উদ-দৌলা।
শনিবার (৫ জুন) সকালে পানিউন্নয়ন বোর্ডের ৪৮ নং পোল্ডারের বেশ কয়েকটি জায়গা এই অতিরিক্ত সচিব ঘুরে দেখেন। ২০১৭ সালের ১১ জুলাই শুরু হওয়া কাজ চলতি বছরের শুরুতেই সম্পন্ন হবার কথা থাকলেও ইতোমধ্যে ৭০ ভাগ সম্পন্ন হয়েছে বলে দাবি ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানটির। এসবের মধ্যে ছিল বাঁধ টেঁকসই ও উন্নয়ন, অভ্যন্তরীণ খাল খনন, স্লুইসগেট নির্মাণ, স্লোপ প্রটেকশন ইত্যাদি। প্রায় ১ হাজার নব্বই কোটি টাকার কাজে বিভিন্ন সময় গণমাধ্যমে অনিয়মের খবর প্রকাশিত হয়। কাজের সময়সীমা বাড়িয়ে ২০২৩ সালের মধ্যে সম্পন্নের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধরণ করলেও খাল খনন ও উপকূলীয় বেড়িবাঁধ নির্মাণে যথাযথ নিয়ম মানা হয়নি বলে জোরাল অভিযোগ ওঠে। ৩৪ কিঃমিঃ বাঁধ টেঁকসই ও উন্নয়নে ঠিকভাবে কমপ্যাক্ট না হওয়া এবং মাটি ব্যবহারের পরিবর্তে বালু ব্যবহার করে বাঁধ নির্মাণের ফলে নানা প্রশ্নের উদ্রেক হয়। এসব প্রশ্নের সমাধান খুঁজতেই সরেজমিনে পরিদর্শনে আসেন পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব। এসময় তাঁর সাথে ছিলেন, পানিউন্নয়ন বোর্ডের অতিরিক্ত মহাপরিচালক একেএম সামসুল আলম, পানিউন্নয়ন বোর্ডের অতিরিক্ত মহাপরিচালক মিজানুর রহমান, প্রকল্প পরিচালক সৈয়দ হাসান ইমাম, প্রধান প্রকৌশলী আবুবকর সিদ্দিক ভূইয়াসহ পাউবো’র কর্মকর্তারা।
কুয়াকাটা সৈকতে উপকূলীয় বাঁধ উন্নয়ন প্রকল্পের কাজ পরিদর্শনকালে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে অতিরিক্ত সচিব রোকন উদ-দৌলা বলেন, বেড়িবাঁধ টেঁকসই এবং উচুকরণে কাজ চলমান রয়েছে। কাজের মান কেমন হয়েছে আমরা দেখছি।

এনইউবি/এমআর

বাংলাদেশ সময়: ২০:১৪:০৮ ● ৭০ বার পঠিত




পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)

আর্কাইভ