কালবৈশাখী ঝড়ের তান্ডবদুমকিতে গাছচাপায় অর্ধশতাধিক ঘরবাড়ি বিধ্বস্ত

প্রথম পাতা » পটুয়াখালী » কালবৈশাখী ঝড়ের তান্ডবদুমকিতে গাছচাপায় অর্ধশতাধিক ঘরবাড়ি বিধ্বস্ত
বৃহস্পতিবার ● ১৮ এপ্রিল ২০২৪


দুমকিতে গাছচাপায় অর্ধশতাধিক ঘরবাড়ি বিধ্বস্ত

দুমকি(পটুয়াখালী) সাগরকন্যা প্রতিনিধি॥

পটুয়াখালীর দুমকিতে আকস্মিক ঘূর্ণীঝড়ে অর্ধশতাধিক ঘরবাড়ি বিধ্বস্ত ও গাছপালার ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। ঝড়ের তান্ডবে খুটি ভেঙ্গে তার ছিড়ে বিদ্যুৎহীন পুরো উপজেলা।
গতকাল বুধবার রাত সাড়ে ৭টার দিকে উপজেলার উপর দিয়ে বয়ে যাওয়া প্রচন্ড বেগের আকস্মিক কালবৈশাখী ঝড়ে শ্রীরামপুর ইউনিয়নের চরবয়েড়া গ্রামের সাহাবুদ্দীন হাং, শাহীন খানের বসতঘর, জুলফিকার আালী মিয়ার রাইসমিল সম্পূর্ণ বিধস্ত, একই গ্রামের বাবুল হাওলাদার, ফিরোজ গাজী, রফিক শরীফ, শাহআলম হাওলাদারের বসতঘরের ছাউনী উপড়ে ফেলেছে। লেবুখালী ইউনিয়নের মুন্সীরহাট এলাকায় গাছচাঁপায় সুলতান পাহলান গুরুতর আহত হয়ছে। মুরাদিয়া ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের সুশীল হাওলাদার, স্বপন মহেশ, বাবুলাল সরকার, দেলোয়ার মোল্লা, কালাম হাওলাদার, হাওয়া বেগমের বসত: সম্পূর্ণ ও কতেক আংশিক বিধ্বস্ত হয়েছে। এছাড়াও আশপাশের গ্রামের আধাপাকা ও কাঁচা ঘরবাড়ি বিধস্ত, গাছপালা ভেঙ্গে ও উপড়ে পড়ে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির খবর পাওয়া গেছে। ঝড়ের তান্ডবে ওই এলাকায় গাছপালা, কলার বাগান, সবজির ক্ষেতসহ রবি ফসলেরও ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। তাছাড়া কয়েকটি স্পটে পল্লীবিদ্যুৎ এর খুটি ভেঙে ও উপড়ে তার ছিড়ে বিদ্যুত সরবরাহ লাইন বিচ্ছিন্ন হয়ে পুরো এলাকা অন্ধকারে নিমজ্জিত হয়ে পড়েছে। শ্রীরামপুর ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মো: বাকের আলী (বাবুল) হাওলাদার বলেন, তার বাড়ির সামনের মসজিদের ছাউনীসহ এলাকার অনেক ঘরবাড়ি, গাছপালা ও ফসলের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।
মুরাদিয়া ইউপি চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান সিকদার বলেন, ঝড়ে তার ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডে সবচেয়ে বেশী মানুষের ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। অন্যান্য ওয়ার্ডেও ঘরবাড়ির ক্ষয় ক্ষতির খবর পেয়েছি। সরেজমিন দেখে ক্ষয় ক্ষতি নিরুপণ তালিকা করা হবে।
দুমকি উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ শাহিন মাহমুদ বলেন, ঝড়ের পর পরই বিভিন্ন ইউপি চেয়ারম্যানসহ সংশ্লিষ্টদের ক্ষয়ক্ষতি নিরুপণের নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

 

 

 

এমআর

বাংলাদেশ সময়: ২১:২০:৩০ ● ৭৫ বার পঠিত




পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)

আর্কাইভ