দুমকিতে সাবেক স্ত্রীকে হত্যার স্বীকারোক্তি পাষন্ড স্বামীর!

প্রথম পাতা » পটুয়াখালী » দুমকিতে সাবেক স্ত্রীকে হত্যার স্বীকারোক্তি পাষন্ড স্বামীর!
রবিবার ● ২৯ মে ২০২২


দুমকিতে সাবেক স্ত্রীকে হত্যার স্বীকারোক্তি পাষন্ড স্বামীর!

দুমকি(পটুয়াখালী) সাগরকন্যা প্রতিনিধি॥

 

পটুয়াখালীর দুমকিতে ডিভোর্স দেয়ার ক্ষোভে নিজ হাতে শরীরে পেট্রোল ঢেলে সাবেক স্ত্রী ইতি আক্তারকে (২৬) পুড়িয়ে মারার স্বীকারোক্তি দিয়েছে পাষন্ড স্বামী আঃ জলিল। গ্রেফতারের পর পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে সাবেক স্বামী আঃ জলিল অকপটে হত্যাকান্ডের স্বীকারোক্তি করেছে।
রবিবার (২৯ মে) সকালে দুমকি থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আবদুস সালাম এ তথ্য নিশ্চিত করেন। ওসি আবদুস সালাম জানান,  ঘটনার ২০ঘন্টার ব্যবধানে তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহারে আসামি জলিলের অবস্থান সনাক্ত করে কুষ্টিয়ার মিরপুর থানার সামন্ত এলাকা থেকে পুলিশের একটি চৌকস টিম জলিলকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে পটুয়াখালীর দুমকি উপজেলার পাঙ্গাশিয়া ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের আব্দুল মান্নাফের মেয়ে সাবেক স্ত্রী ইতি আক্তার( ২৬)কে পেট্রোল ঢেলে আগুন দেয়ার ঘটনা পুরোপুরি নিজ মুখ স্বীকার করেছে। আসামী জলিলের বরাত দিয়ে ওসি আবদুস সালাম জানান, ঘটনার দিন বিকেলে জলিল যাত্রীবাহী বাসযোগে দুমকি উপজেলার পায়রা সেতুর টোলপ্লাজায় আসে। সন্ধ্যা নেমে আসলে একটি দোকান থেকে ২লিটার পেট্রোল কিনে রাত ৯টার দিকে সে তার শ্বশুরের বসত:ঘরের পেছনে অবস্থান নেয়। রাত গভীর হলে (রাত দেড় টা) কৌশলে সে শশুরের ঘরে ঢুকে ঘুমে থাকা সাবেক স্ত্রী ইতির শরীরে পেট্রোল ঢেলে দ্রুত গ্যাস লাইটার জ¦ালিয়ে আগুন লাগিয়ে দেয়। ইতির ডাকচিৎকারে ঘরের লোকজন সজাগ হওয়ার সাথে সাথে সে (জলিল) দৌড়ে বাইরে নেমে কিছুক্ষন অন্ধকারে পালিয়ে থেকে পরে পায়ে হেঁটে পাগলার মোড়ে আসে। পাগলা থেকে রাত আড়াইটার দিকে একটি মাহেন্দ্রায় বরিশাল পৌঁছায়। বরিশাল থেকে শনিবার  সকালে কুষ্টিয়ায় নিজ গ্রামে চলে যায়। তবে জলিলের ভাষ্যমতে সে প্রাণে মারার জন্য ইতির শরীরে পেট্রোল ঢালেনি, শুধু ভয় দেখাতে চেয়েছিলো।
উল্লেখ্য, গত শুক্রবার রাত দেড় টায় পটুয়াখালীর দুমকি উপজেলার পাঙ্গাশিয়া ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের আব্দুল মান্নাফের মেয়ে সাবেক স্ত্রী ইতি আক্তার( ২৬)কে ঘুমে থাকা অবস্থায় শরীরে পেট্রোল ঢেলে আগুন দিয়ে পালিয়ে যায় পাষান্ড স্বামী আ: জলিল। পরিবারের লোকজ অগ্নিদগ্ধ ইতি আক্তারকে ওই রাতেই মুমূর্ষূ অবস্থায় পটুয়াখালী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে বরিশাল শেরে-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পর সেখান থেকে ঢাকায় বার্ণ হাসপাতালে পাঠানোর পরামর্শ দেয়। বরিশালের অদূরে এ্যাম্বুলেন্সেই ইতির মৃত্যু হয়। পরে এ্যাম্বুলেন্স ঘুড়িয়ে পাংগাশিয়ার গ্রামের বাড়িতে লাশ নিয়ে আসে। খবর পেয়ে দুমকি থানা পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করে। এ ঘটনায় শনিবার (২৮ মে) রাতে নিহত ইতি আক্তারের বাবা মান্নান খান বাদী হয়ে জলিলকে আসামি করে দুমকি থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছে। দায়েরকৃত হত্যা মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে আসামি জলিলকে রবিবার বেলা ১১ টায় জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়।

এমআর

বাংলাদেশ সময়: ২২:৪৩:৩২ ● ১১৭ বার পঠিত




পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)

আর্কাইভ