গলাচিপায় সংখ্যালঘু পরিবারে হামলা, মন্দির ভাংচুর

প্রথম পাতা » পটুয়াখালী » গলাচিপায় সংখ্যালঘু পরিবারে হামলা, মন্দির ভাংচুর
সোমবার ● ১৭ মে ২০২১


গলাচিপায় সংখ্যালঘু পরিবারে হামলা, মন্দির ভাংচুর

গলাচিপা (পটুয়াখালী) সাগরকন্যা প্রতিনিধি॥

পটুয়াখালীর গলাচিপায় তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে এক সংখ্যালঘু পরিবারের বাড়িঘর ও মন্দিরে ভাংচুর করেছে প্রতিপক্ষরা। এতে অন্তত: তিনজন আহত হয়েছে বলে জানা যায়।
উপজেলার বকুলবাড়িয়া ইউনিয়নের ছোনখোলা গ্রামে রবিবার বিকালে এই হামলা হয় বলে আহত রিতা রানী মালাকার জানান। আহতরা হলেন রিতা রানী মালাকার (৩৫), শ্যামল মালাকার (৫০) ও দিনেশ মালাকার (৫৫)। আহত রিতা রানী মালাকার ও শ্যামল মালাকারকে গলাচিপায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করা হয়। এ বিষয়ে আহত রিতা রানী মালাকার জানান, আমাদেরকে মারধর করে পরে আমাদের বাড়ি ঢুকে ঘরবাড়ি ও মন্দির ভাংচুর করে চান মিয়া বেপারীসহ তার বাড়ির লোকজন। স্থানীয় মনোতোষ মালাকার জানান, গরুতে ডাল খেতে গিয়ে ডাল খাওয়ার ঘটনাকে কেন্দ্র করে হিন্দুদের বাড়িঘর ও মন্দিরে ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে।
এ বিষয়ে চান মিয়া বেপারীর কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান, তারা আমাদেরকেও আহত করেছে। আহতদের পটুয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। হামলার খবর শোনার সঙ্গে সঙ্গে গলাচিপা থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে বলে ওসি জানান।
এ বিষয়ে গলাচিপা হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডাক্তার শুভ্রত দে বলেন, আহতরা আমার চিকিৎসাধীনে ৩য় তলায় ৭ নম্বর ও ৮ নম্বর বেডে ভর্তি আছে। রিতা রানী মালাকার এর অবস্থা আশঙ্কাজনক। মাথায় সেলাই আছে। এ বিষয়ে বকুলবাড়িয়া ইউপি চেয়ারম্যান আবু জাফর খান বলেন, গরুতে ডাল খাওয়াকে কেন্দ্র করে মালাকার বাড়ি ও বেপারী বাড়ির লোকদের মধ্যে সংঘর্ষ বাধে। আমি সকালে ঘটনাস্থলে গিয়েছিলাম। এ বিষয়ে গলাচিপা থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এম আর শওকত আনোয়ার বলেন, ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। আসামীদের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে।

এসডি/এমআর

বাংলাদেশ সময়: ২১:১০:১০ ● ১৬৪ বার পঠিত




পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)

আর্কাইভ