মঠবাড়িয়ায় ভূমি অফিস সার্ভেয়ার’র ঘুষ বাণিজ্যের অডিও ফাঁস!

প্রথম পাতা » পিরোজপুর » মঠবাড়িয়ায় ভূমি অফিস সার্ভেয়ার’র ঘুষ বাণিজ্যের অডিও ফাঁস!
মঙ্গলবার ● ২৩ নভেম্বর ২০২১


মঠবাড়িয়ায় ভূমি অফিসের সার্ভেয়ার’র ঘুষ বাণিজ্যের অডিও ফাঁস!

পিরোজপুর সাগরকন্যা প্রতিনিধি॥

পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া উপজেলা ভূমি অফিসের সার্ভেয়ার আসাদ উল্ল্যাহ’র ঘুষ বানিজ্যের কথোপকথোনের অডিও ফাঁস হয়েছে। আর এ অভিযোগে ওই সার্ভেয়ারকে সোমবার (২২ নভেম্বর) দুপুরে বিভাগীয় কার্যালয়ে বদলি করা হয়েছে।
অভিযোগে জানাগেছে, উপজেলা ভূমি অফিসের সার্ভেয়ার আসাদ উল্ল্যাহ অফিসটিকে ঘুষ বাণিজ্যের আখড়ায় পরিনত করেছেন।  তার ঘুষ বাণিজ্যের একটি অডিও ফাঁস হলে বিষয়টি মঠবাড়িয়ায় টক অফ দ্যা টাউনে পরিণত হয়। ডিসিআর পাইয়ে দেয়ার নাম বলে তিনি ঘুষ দাবি করেন। আর ওই ঘুষ দিতে এসে আতিক নামে একজন যুবক গ্রেপ্তার হন। তিনি গ্রেফতারের পর তার মুঠো ফোনে থাকা ওই সার্ভেয়ারের কথোপকথোন ফাঁস করেন তার স্বজনরা। ওই কথোপকথোন থেকে জানান যায়, আতিক নামের ভূক্তভোগীকে ডিসিআর পাইয়ে দিতে সার্ভেয়ার ৫লক্ষ টাকার ঘুষ দাবির  করেন।

জানা গেছে, মঠবাড়িয়া উপজেলার ধানিসাফা বাজারের মক্কা ফার্মেসীর মালিক মোঃ আতিকুল ইসলাম ঘর ভাড়া নিয়ে গত ৩ বছর ধরে ওষুধের ব্যবসা করে আসছেন। ডিসিআর সূত্রে ওই ঘরের মালিক স্থানীয় মিজানুর রহমান বাবু নামে এক ব্যক্তি। ওই ঘর মালিক মিজানুর রহমান বাবু ঢাকায় থাকায় এই সুযোগে ওই ভিটির ডিসিআর নিতে একটি পক্ষ চেষ্টা চালান।  তারা সংশ্লিষ্ট অফিসের কিছু অসাধু কর্মকর্তার যোগসাজশে মিজানুর রহমান বাবুর ডিসিআর সংক্রান্ত নথি গায়েব করেন। পরবর্তিতে বাবু রাজস্ব দিতে গিয়ে নথি না থাকায় নবায়ন করতে পারেননি।
এদিকে সুযোগবাদী চক্রটি স্থানীয় তহশিলদার ও মঠবাড়িয়া ভূমি অফিসের সার্ভেয়ার আসাদ উল্ল্যাহ‘র যোগসাজশে আতিকের দখলে থাকা ভিটিটির ডিসিআর কেটে নেয়। ভিটি কেস নং-০৪ (এম) ২০২০-২১।
ডিসিআর কাটার পর আতিককে ওষুধের দোকান গুছিয়ে চলে যাওয়ার জন্য চাপ দিতে থাকে। আর এ চাপ প্রয়োগে প্রকাশ্যে আসে সার্ভেয়ার, অবৈধ ডিসিআরধারী এবং স্থানীয় কিছু প্রভাবশালীর নাম । এক পর্যায়ে গায়ের জোরে সম্প্রতি দোকানটি তালা মেরে আটকে দেয় তারা।
এদিকে ওই ভিটির তালা খুলতে মরিয়া হয়ে ওঠে ওষুধ ব্যবসায়ী আতিক। গত ১৭ নভেম্বর সন্ধ্যায় সার্ভেয়ারের কথামত ঘুষ নিয়ে আসে। ঘুষ লেনদেনের সময় পরিবেশ প্রতিকুল হওয়ায় সার্ভেয়ার নিজে সেফ থাকার জন্য কৌশলে আতিককে পুলিশের হাতে ধরিয়ে দেয়। আতিক উপজেলার বড় শৌলা গ্রামের মালেক মাওলানার ছেলে।
এ ব্যাপারে সার্ভেয়ার আসাদ উল্ল্যাহ অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, ওই অডিওটি এডিটিং করা।
মঠবাড়িয়া উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) সাখাওয়াত জামিল সৈকত জানান, সার্ভেয়ার আসাদ উল্ল্যাহ‘কে সোমবার দুপুরে প্রত্যাহার করে বিভাগীয় কার্যালয়ে সংযুক্ত করা হয়েছে।


আরএইচএম/এমআর

বাংলাদেশ সময়: ০:১৪:৩৭ ● ৯০ বার পঠিত




পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)

আর্কাইভ