তালতলীতে নারীর কান ছিড়ে গহনা লুট!

প্রথম পাতা » বরগুনা » তালতলীতে নারীর কান ছিড়ে গহনা লুট!
সোমবার ● ১০ জুন ২০২৪


তালতলীতে নারীর কান ছিড়ে গহনা লুট!

আমতলী (বরগুনা) সাগরকন্যা প্রতিনিধি॥

তালতলী উপজেলার পচাঁকোড়ালিয়া ইউনিয়নের ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ সভাপতি মজিবুর রহমান হাওলাদারের ছেলে রাজিব হাওলাদার সুফিয়া বেগম (৫০) নামের এক নারীর দুই কান ছিড়ে সোনার গহনা লুট করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। আহত সুফিয়া বেগম এমন অভিযোগ করেন। স্বজনরা আহত সুফিয়া বেগমকে উদ্ধার করে আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেছে। এ ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। ঘটনা ঘটেছে সোমবার সকালে উপজেলার কলারং গ্রামে।
জানাগেছে, উপজেলার কলারং গ্রামের সুফিয়া বেগমের কলমী খেত পচাঁকোড়ালিয়া ইউনিয়নের ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ সভাপতি মজিবুর রহমান হাওলাদারের ছেলে রাজিব হাওলাদারের ছাগলে খেয়ে ফেলে। ওই ছাগল তাড়িয়ে দেন সুফিয়া বেগম। এতে ক্ষিপ্ত হয় রাজিব হাওলাদার। পরে তিনি সুফিয়া বেগমের বাড়ীতে গিয়ে তার দুই কান ছিড়ে কানে থাকা সোনার গহনা লুট করে নিয়ে যায়। আহত নারীতে স্বজনরা উদ্ধার করে আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেছে।
আহত নারী সুফিয়া বেগম বলেন, আমার কলমী খেত আওয়ামীলীগ সভাপতি মজিবুর রহমান হাওলাদারের ছেলে রাজিব হাওলাদারের ছাগলে খেয়ে ফেলে। আমি ওই ছাগল তাড়িয়ে দেই। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে রাজিব আমার দুই কানে ছিড়ে কানে থাকা সোনার গহনা নিয়ে গেছে। আমি এ ঘটনার বিচার চাই।
অভিযুক্ত রাজির হাওলাদারের বাবা ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ সভাপতি মোঃ মজিবুর রহমানের মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তার ফোন বন্ধ পাওয়া গেছে।
আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার ডাঃ তানভির শাহরিয়ার বলেন,  আহত সুফিয়া বেগমের দুই কানে আঘাতের চিহৃ রয়েছে।
তালতলী থানার ওসি শহীদুল ইসলাম খাঁন বলেন, অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

 

 

এমএইচকে/এমআর

বাংলাদেশ সময়: ২২:৪৭:০৩ ● ২৫ বার পঠিত




পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)

আর্কাইভ