চরফ্যাশনে অপহৃত মিনারার সন্ধান দাবিতে মানববন্ধন

প্রথম পাতা » ব্রেকিং নিউজ » চরফ্যাশনে অপহৃত মিনারার সন্ধান দাবিতে মানববন্ধন
বুধবার ● ২৪ মে ২০২৩


চরফ্যাশনে অপহৃত মিনারার সন্ধান দাবিতে মানববন্ধন

চরফ্যাশন (ভোলা) সাগরকন্যা প্রতিনিধি॥

ভোলার চরফ্যাশন উপজেলার চরকলমী ইউনিয়নের ০৮নং ওয়ার্ডের মিনারা বেগমের সন্ধান চেয়ে ও অপহরনকারী জলিল মেম্বারের বিচারের দাবীতে মানবন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বুুুধবার (২৪ মে) সকাল ১১টায় চরকলমী ইউনিয়নের বক্তিরহাট বাজারে মানবাধিকার সংস্থা ও এলাকাবাসীর আয়োজনে এই মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।
অপহৃত মিনারা বেগম উপজেলার শশীভূষণ থানাধীন চরকলমী ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা আঃ হাকিমের মেয়ে।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, গত ৮ জানুয়ারী মিনারার বসতবাড়ী থেকে জলিল মেম্বার অপহৃত মিনারাকে ডেকে নেয় এরপর থেকে মিনারা নিখোঁজ হন। এ বিষয়ে মিনারার পরিবার শশীভূষণ থানায় একটি সাধারন ডায়েরী করে। সাধারন ডায়েরী করার পর কোন সন্ধান না পাওয়ায় চর কলমী ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য জলিলসহ পাঁচজনের নাম উল্লেখকরে মিনারার পরিবার ভোলা নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে একটি অপহরন মামলা দায়ের করেন। এছাড়াও অপহৃত মিনারাকে ফিরে পেতে প্রশাসনের কাছে দাবী জানান এলাকাবাসী।

মিনারার বড়ভাই আবু জাফর বলেন, অপহৃত মিনারার বিয়ে হওয়ার পর স্বামীর সাথে বিয়ে বিচ্ছেদ হয়। তারপর থেকে মিনারা তার পৈত্রিক সম্পত্তিতে বসত ঘর নির্মান করে বসবাস করে। চর কলমী ইউনিয়ন ৮নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য আঃ জলিল মিনারার ঘরে প্রায় সময় আসা যাওয়া করে। আসা যাওয়ার মাঝে জলিল মেম্বার বিয়ের আশ্বাস দিয়ে মিনারার সাথে অবৈধ সম্পর্ক গড়ে উঠে। চলতি বছরের ৮ জানুয়ারী মিনারার বসতবাড়ী থেকে জলিল মেম্বার অপহৃত মিনারাকে ডেকে নেয় এরপর থেকে মিনারা নিখোঁজ হন। এ বিষয়ে মিনারার পরিবার শশীভূষণ থানায় একটি সাধারন ডায়েরী করে। সাধারন ডায়েরী করার পর কোন সন্ধান না পাওয়ায় চর কলমী ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য জলিলসহ পাঁচজনের নাম উল্লেখ করে মিনারার বড়ভাই আবু জাফর বাদী হয়ে ভোলা নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে একটি অপহরন মামলা দায়ের করেন। মিনারা নিখোঁজের কয়েকদিন পরে মিনারার ভাই আবু জাফর ঘরের তালা ভেঙে ঘরে প্রবেশ করে দেখে তোষকের ওপর মিনারা ও আঃ জলিল মেম্বারের তিনটি করে ছয়টি জাতীয় পরিচয় পত্রের ফটোকপি রয়েছে, একটি মেমোরি কার্ড ও ৫০০ টাকা। মেমোরিকার্ডটি ফোনে ঢুকিয়ে মিনারা ও আঃ জলিলের মধ্যে অবৈধ যৌনসম্পর্ক ও বাচ্চাগর্ভপাতের কথোপকথন শুনতে পায় মিনারার পরিবার।
মানবাধিকার সংস্থা চরফ্যাশন উপজেলা শাখার সভাপতি মোঃ সামসুদ্দিন হাওলাদার বলেন, এবিষয়ে আইনি সহায়তা পাওয়ার জন্য ইউনিটি ফর ইউনিভার্স হিউম্যান রাইটস্ অব বাংলাদেশ ফাউন্ডেশন চরফ্যাসন শাখা বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন মিনারার বড়ভাই আবু জাফর। আমি উক্ত ঘটনার ফোন রেকর্ড ও স্বাক্ষীর মাধ্যমে উক্ত ঘটনার সত্যতা পেয়েছি। মিনারার সন্ধান ও দোষীদেরকে আইনের আওতায় এনে শাস্তির দাবী জানাচ্ছি প্রশাসনের কাছে।

এএইচ/এমআর

বাংলাদেশ সময়: ২১:৩৮:০৩ ● ৬০ বার পঠিত




পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)

আর্কাইভ