গর্ভের সন্তান নষ্টে অমত করায়চরফ্যাশনে গৃহবধূকে অমানুষিক নির্যাতন!

প্রথম পাতা » ভোলা » গর্ভের সন্তান নষ্টে অমত করায়চরফ্যাশনে গৃহবধূকে অমানুষিক নির্যাতন!
মঙ্গলবার ● ২৬ জুলাই ২০২২


চরফ্যাশনে গৃহবধূকে অমানুষিক নির্যাতন!

চরফ্যাশন (ভোলা) সাগরকন্যা প্রতিনিধি॥

চরফ্যাশন উপজেলার আব্দুল্লাহপুর ইউনিয়নে রিপা বেগম নামে এক গৃহবধূর ওপর জোর পূর্বক ১ম বাচ্চা নষ্ট করার পর গর্ভের ২য় সন্তান নষ্ট না করায় হামলা মারধর করা হযেছে। সোমবার রাতে ভূক্তভূগী রিপাকে চরফ্যাশন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
স্হানীয় ও হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়, ২০২০ সালে আব্দুল কাদের পারিবারিক ভাবে ২ লক্ষ টাকা দেনমোহরে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়। বিবাহের কিছু দিন যেতেই না যেতেই স্বামী আবদুল কাদের রিপাকে বাবার বাড়ি থেকে যৌতুকের টাকা আনার জন্য চাপ প্রয়োগসহ মারধর নির্যাতন করতো। যৌতুকের টাকা দিতে অপারগতা প্রকাশ করলে গর্ভে ধারণ করা প্রথম সন্তান কে নষ্ট করার জন্য স্বামী আব্দুল কাদের রমজান মাসে ইসবগুলের ভুষির সাথে বিষাক্ত ট্যাবলেট খাইয়ে রিপার বাচ্চা নষ্ট করে।
পরে দাম্পত্যজীবনে সুখ পাওয়ার আশায় বাবার বাড়ি থেকে জমি বিক্রি ও সুদে ৪লক্ষ টাকা এনে স্বামীর হাতে তুলে দেয়। স্বামী টাকা পেয়ে রিপা কে এড়িয়ে চলে। ২মাস যাওয়ার পর রিপাকে ফের বাবার বাড়ি থেকে টাকা আনার জন্য চাপ প্রয়োগ করে। রিপা আর কোনো যৌতুকের টাকা দিতে রাজি না হওয়ায় গর্ভ ধারণের ২য় সন্তানকে নষ্ট করার অপচেষ্টা করছে। রিপাকে না জানিয়ে রিপার স্বামী আব্দুল কাদের বিদেশ থেকে রিপাকে বিভিন্ন ধরনের হুমকি দিয়ে আসছে।
ভূক্তভগী রিপা বলেন, আমার স্বামী গেছে আমি জানি না। আমার প্রথম সন্তান নষ্ট করার পর যৌতুকের টাকার জন্য ২য় সন্তান কে নষ্ট করে হত্যা করতে চায়। আমার সন্তান নষ্ট করলে আমি জীবিত থেকে লাভ কি? স্বামীর নির্দেশে আমার সৎ ছেলে কাওছার(২৩) ও দেবর নুর মোহাম্মদ রাত আনুমানিক ৮টায় আমার ঘরে প্রবেশ করে আমাকে মারধর শুরু করে। আমাকে জোরপূর্বক ঘর থেকে বাহির করে আমার ঘরে তালা ঝুলিয়ে দেয়। আমার ডাক চিৎকারে আশপাশের লোকজন আমাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে। বাচ্চা নষ্ট না করে ও যৌতুকের টাকা না এনে ঘরে ঢুকার চেষ্টা করলে তোরে জীবনের তরে শেষ করে দিব। লাশও খুঁজে পাবি না। আমার স্বামী আমাকে বিদেশ থেকে তালাক দিবে বলে ভয়ভীতি প্রদর্শন করে।  আমি ও আমার পরিবার নিরাপত্তা হীনতায় ভুগছি।
আব্দুল কাদের ভাই আব্দুর রহমান হাওলাদার বলেন, আমি প্রথমে ঘটনাস্থলে উপস্থিত ছিলাম না। আমি এসে দেখি রিপা ঘরের বাইরে কান্নাকাটি করছে। রিপার ঘর তালা ঝুলানো ছিল। আমি রিপার সৎ ছেলে কাওছার কে বললাম রিপা কে ঘরে নিয়ে যাওয়ার জন্য বললেও কাওছার আমার কথা পাত্তাই দেয়নি। রিপার পরিবারের পক্ষ থেকে নারী ও শিশু নির্যাতন ট্রাইবুনাল আদালতে মামলা দায়ের করার প্রস্তুতি চলছে বলে নিশ্চিত করা হয়েছে।


এএইচ/এমআর

বাংলাদেশ সময়: ২১:৪৩:৩৫ ● ১১১ বার পঠিত




পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)

আর্কাইভ