গৌরনদীর ট্রাক মালিক হত্যায় মামলা দায়ের

প্রথম পাতা » বরিশাল » গৌরনদীর ট্রাক মালিক হত্যায় মামলা দায়ের
বুধবার ● ২২ জুন ২০২২


গৌরনদীর ট্রাক মালিক হত্যায় মামলা দায়ের

গৌরনদী (বরিশাল) সাগরকন্যা প্রতিনিধি॥

যশোরে গৌরনদীর ট্রাক মালিক রেজাউল করিম(৪০)কে হত্যা করে ট্রাক ছিনতাইর ঘটনায় ট্রাক চালক হৃদয় হোসেনের নামোল্লেখসহ অজ্ঞাতনামাদের আসামি করে যশোর কোতোয়ালী থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে। মঙ্গলবার রাত ১০টার দিকে বরিশালের গৌরনদী পৌরসভার টরকীরচর এলাকার নিহত ট্রাক মালিক রেজাউল করিমের স্ত্রী তিন সন্তানের জননী হাসিনা বেগম বাদি হয়ে (৩৩) এ হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলার আসামি হলেন-গাজীপুর জেলার টুঙ্গী থানার রাস্তা-ব্যাংকপাড়া, খরতৈল গ্রামের মো. জসিমের ছেলে ট্রাক চালক হৃদয় হোসেন (২৪) ময়না তদন্ত শেষে রেজাউলের লাশ বুধবার সকালে গৌরনদীর টরকীরচর এলাকায় পৌঁছলে স্বজনদের আহাজারিতে আকাশ বাতাষ ভারি হয়ে উঠে। সকাল ৭টার দিকে জানাজা শেষে ট্রাক মালিক রেজাউলের লাশ পারিবারিক গোরস্থানে দাফন করা হয়েছে।
যশোর কোতোয়ালী থানার পরিদর্শক (তদন্ত) শেখ মনিরুজ্জামান বলেন,পুকুর থেকে রেজাউল করিমের লাশ উদ্ধারের ঘটনায় নিহতের স্ত্রী বাদি হয়ে ট্রাক চালক হৃদয় হোসেনসহ অজ্ঞাতনামাদের আসামি করে থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলার আসামি ট্রাক চালক  হৃদয়কে গ্রেফতারের  ও ট্রাকটি উদ্ধারের জোর প্রচেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।  আশা করি শীগ্রই একটা ভাল ফলাফল পাওয়া যাবে।
নিহতের স্ব^জনরা জানায়, গৌরনদী পৌরসভার টরকীরচর এলাকার ইউনুস বয়াতির ছেলে রেজাউল পাঁচ বছর পূবে কাতার প্রবাস থেকে দেশে ফিরে এসে একটি ট্রাক কিনে ভাড়ায় পরিচালনা করতেন। তিনি সব সময় ট্রাকের (ঢাকা মেট্রো ট-১৬-৮৬৪৪) চালক হৃদয় হোসেনের সঙ্গে  থাকতেন। রেজাউলেরও ভারি যানের ড্রাইভিং লাইসেন্স ছিল। ট্রাকের চালক হৃদয়সহ রেজাউল গত ৩০ মে ট্রাকটি নিয়ে বাড়ি থেকে বের হন। প্রতিদিন স্ত্রী ও ২ কন্যার সাথে মোবাইল ফোনে কথাবার্তা বলত রেজাউল।
নিহত ট্রাক  মালিকের স্ত্রী হাসিনা বেগম কান্না জনিতকন্ঠে বলেন, প্রতিদিনের ন্যায় সর্বশেষ গত ২০ জুন দিবাগত রাত ১০টার দিকে আমি স্বামী রেজাউলের সঙ্গে ইমুতে কথাবার্তা বলেছি। আমার সাত মাসের পুত্র সন্তান নুর-মোহাম্মদ বয়াতিকে ভিডিও কলে দেখেন স্বামী। তখন স্বামী আমাকে জানায়, আমি (স্বামী) বর্ডার এলাকায় আছি। কোন ট্রফপ পাই নাই। আমি এখন নওয়াপাড়া যশোর যাব। সেখান থেকে আগামী কাল বুধবার (২২ জুন) সকালে কাঁঠালের ট্রিপ নিয়ে বরিশাল যাব। তখন আমি স্বামীকে বলি এত রাতে নওয়াপাড়া যাওয়ার দরকার নাই। সে বলে আমি নওয়াপাড়ায় গিয়ে গাড়ির মধ্যে ঘুমিয়ে থাকব। পরবর্তীতে ২১জুন সকাস পৌণে ৮টার দিকে আমি স্বামীর মোবাইল ফোনে রিং দিলে তার ফোন  বন্ধ পাই।
তিনি আরও বলেন, ট্রাকের আয় দিয়ে ১পুত্র ও ২ কন্যা সন্তান নিয়ে আমাদের সংসার ভালই চলছিল। সাত মাসের ছেলে নুর-মোহাম্মদের জন্য আমার স্বামী ঢাকা থেকে প্যার্ন্ট-শার্ট কিনে ছিলেন। নওয়াপাড়া থেকে কাঁঠালের ট্রিপ নিয়ে স্বামী ২১ জুন বরিশালে এসে বাড়িতে আসবে বলেছিল।  কিন্তু স্বামী আমার ছেলের প্যান্ট শার্ট নিয়ে জীবিত অবস্থায় বাড়ি  আসেনি। লাশ হয়ে বাড়ি ফিরল। আমার স্বামীকে খুন করে গাড়ি (ট্রাক) ছিনতাই করে নিয়ে গেছে ট্রাক চালক হৃদয় ও তার সহযোগীরা। আমাদের এখন কি উপায় হবে।
নিহতের কন্যা অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী রুকাইয়া আক্তার রাফিদা (১৪), তৃতীয় শ্রেণীর ছাত্রী রুবাইদা আক্তার (১০) কান্না জনিতকন্ঠে জানান, প্রতিদিনের ন্যায় তার বাবা বেজাউল সর্বশেষ গত ২০জুন দুপুর ২টার দিাকে ফোন করে তাদের লেখাপড়ার খোঁজ খবর নেন।  বাবার স্বপ্ন ছিল বড় মেয়েকে ডাক্তারী পড়াবেন। বাবা স্বপ্ন পূরণ হলো না।
উল্লেখ্য, যশোর কোতোয়ালী থানাধীন পদ্মবিলা এলাকার ঘুনিনাথপাড়া নামকস্থানের যশোর-খুলনা মহাসড়কের পাশে মো. রাশিদুল ইসলামের পুকুর থেকে মঙ্গলবার বেলা ১১টার দিকে গৌরনদীর ট্রাক মালিক রেজাউল করিমের মরদেহ উদ্ধার করে থানা পুলিশ।

বিকেএস/এমআর

বাংলাদেশ সময়: ২১:৩১:৩৭ ● ২১ বার পঠিত




পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)

আর্কাইভ