ভিটি দখল চেষ্টার অভিযোগদুমকিতে সংখ্যালঘুর দোকানে হামলা-ভাংচুর!

প্রথম পাতা » পটুয়াখালী » ভিটি দখল চেষ্টার অভিযোগদুমকিতে সংখ্যালঘুর দোকানে হামলা-ভাংচুর!
বৃহস্পতিবার ● ১৯ মে ২০২২


দুমকিতে সংখ্যালঘুর দোকানে হামলা-ভাংচুর!

দুমকি (পটুয়াখালী) সাগরকন্যা প্রতিনিধি॥

পটুয়াখালীর দুমকিতে এক সংখ্যালঘু পরিবারের সম্পত্তি দখলের উদ্দেশ্যে দোকানে হামলা ও ভাংচুর চালিয়েছে প্রতিপক্ষের দুর্বৃত্তরা। ক্ষমতাসীন আ’লীগের ছত্রছায়ায় প্রতিপক্ষের হামলায় ওই পরিবারের মা-মেয়েসহ অন্তত: ৩জন নারী সদস্যকে টানা-হ্যাচরা, মারধর ও শ্লীলতাহানির ঘটনা ঘটেছে। এঘটনায় ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের পক্ষ থেকে রাতেই দুমকি থানায় লিখিত অভিযোগ করা হয়।
বুধবার (১৮ মে) সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় উপজেলা শহরের লেবুখালী-বাউফল সড়কের পাশে খুশী মার্কেট সংলগ্ন এলাকায় এ দখল চেষ্টার ঘটনাটি ঘটেছে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, উপজেলার শ্রীরামপুর মৌজার এসএ ১০ ও ১২নং খতিয়ানের ১২৫-নং প্লটের রেকর্ডিও ও ক্রয়সূত্রে জমির মালিক অনিল শীলের পুত্র ত্রিনাথ ও লিটন শীল তাদের ব্যবসায়িক দোকান ঘর নির্মাণ করে। একই জমির ক্রয়সূত্রে মালিকানা দাবিতে শ্রীরামপুর ইউনিয়ন আ’লীগের সভাপতি ও ১নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মো. নাসির উদ্দিন মৃধা ও উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ও পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ^বিদ্যালয়ের সহকারি রেজিষ্ট্রার মো. জসিম উদ্দিন বাদলের নেতৃত্বে ১৫/২০জনের একটি ভাড়াটে দুর্বৃত্তচক্র সংখ্যালঘু পরিবারটির নির্মাণকৃত দোকানে হামলা চালায়। দুর্বৃত্তরা পেশী শক্তির প্রভাবে দোকানের দরজা ও বেড়া ভাংচুর করে এবং ২/৩টি টিন খুলে ফেলে। এসময় বাঁধা দিতে গেলে ত্রিনাথ শীলের কাকি মা তুলসী রানী (৬০), স্ত্রী কনক রানী (৪৫), ভাইয়ের স্ত্রী নমিতা রানী (৩৫), যুবতি ভাইয়ের মেয়ে দোলা রানী শীল (১৬) ও দেবাাশিষ চন্দ্র শীল (২২)কে বেধরক মারধর করে এবং টেনে হ্যাচড়ে ঘর থেকে বেড় করার চেষ্টা করে। এসময় খবর পেয়ে থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে ধাওয়া করলে হামলাকারি দুর্বৃত্তরা দৌড়ে পালিয়ে যায়। এ ঘটনার বিচার দাবিতে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের পক্ষে লিটন চন্দ্র শীল বাদি হয়ে প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে দুমকি থানায় একটি মামলা দায়ের করেছে। মামলা নং
হামলা, ভাংচুর ও ভিটি দখল চেষ্টার অভিযোগ অস্বীকার করে ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ও পবিপ্র’ির সহকারী রেজিষ্ট্রার মো. জসিম উদ্দিন বাদল সাগরকন্যাকে বলেন, প্রতিপক্ষ উল্টো আমাদের কবলাকৃত সম্পত্তির ভিটি ও দোকান জবর-দখল করে রেখেছে। জিজ্ঞেস করতে যাওয়ায় তারা নিজেরাই বেড়ার টিন খুলে ডাকচিৎকার দিয়ে মানুষ জড়ো করেছে এবং  উল্টো আমাদের বিরুদ্ধে মিথ্যে মামলা দিয়েছে।
এ বিষয়ে দুমকি থানার অফিসার ইনচার্জ মো. আবদুস সালাম মামলা দায়েরের সত্যতা নিশ্চিৎ করে বলেন, তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এমআর

বাংলাদেশ সময়: ২২:৩৯:৫৯ ● ২৯ বার পঠিত




পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)

আর্কাইভ