নেছারাবাদে স্কুল ছাত্রীকে অপহরণ ও ধর্ষণে মামলা

প্রথম পাতা » পিরোজপুর » নেছারাবাদে স্কুল ছাত্রীকে অপহরণ ও ধর্ষণে মামলা
বৃহস্পতিবার ● ২৮ মার্চ ২০২৪


নেছারাবাদে স্কুল ছাত্রীকে অপহরণ ও ধর্ষণে মামলা

নেছারাবাদ (পিরোজপুর) সাগরকন্যা প্রতিনিধি॥

পিরোজপুরের নেছারাবাদে ৮ম শ্রেনী পড়–য়া ছাত্রীকে অপহরণের তিনদিন পর উদ্ধার করেছে পুলিশ। বুধবার রাতে ওই ছাত্রীর পিতা বাদী হয়ে দুই জনকে আসামী করে নেছারাবাদ থানায় অপহরণ ও ধর্ষণের অভিযোগে মামলা দায়ের করেন। আসামীরা হলেন, বাউফল থানার কালাইয়া ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের আয়নাবাজ গ্রামের মোঃ ফরহাদের ছেলে মোঃ হৃদয় (২৪) ও তার ভগ্নিপতি দশমিনা থানার রনগোপালদী গ্রামের মোঃ রাশেদুল ইসলাম (৩০)। বৃহস্পতিবার (২৮ মার্চ) সকালে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য ভিকটিমকে পিরোজপুর সিভিল সার্জনের কার্যালয়ে পাঠানো হয়েছে।
মামলা সূত্রে জানা গেছে, বাউফল থানার কালাইয়া ইউনিয়নের মোঃ হৃদয় মামলার বাদী উপজেলার সদর ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডের ব্যবসায়ীর ভাতিজা পিক-আপ ভ্যানের ড্রাইভার। হৃদয় ওই ব্যবসায়ীর ৮ম শ্রেনী পড়–য়া কন্যাকে তার স্কুলে আসা-যাওয়ার পথে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে প্রায়ই উত্যাক্ত করে। ওই ছাত্রী বিষয়টি তার পরিবারকে জানালে হৃদয় তার উপর আরও ক্ষিপ্ত হয়। গত ২৫ মার্চ সকালে ওই ছাত্রী প্রাইভেট পড়ার জন্য বাসা থেকে বের হলে পথিমধ্যে হৃদয় তার ভগ্নিপতি রাশেদুলের সহযোগীতায় ছাত্রীটিকে জোর পূর্বক অপহরণ করে বাউফলে নিয়ে যায়। ওই দিনই ছাত্রীটির পরিবার নেছারাবাদ থানায় নিখোঁজ সংক্রান্ত একটি সাধারণ ডায়রি করেন। পরে পুলিশ বিভিন্ন মাধ্যমে খোঁজ নিয়ে বাউফলের কালাইয়ায় আসামী হৃদয়ের বাড়ী থেকে ওই ছাত্রীকে উদ্ধার করে। মামলার আসামীরা পলাতক রয়েছে। নেছারাবাদ থানার ওসি মোঃ গোলাম সরোয়ার জানান, এ ঘটনার থানায় একটি মামলা রুজু করা হয়েছে। ভিকটিমকে উদ্ধার করে ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য পিরোজপুর সিভিল সার্জনের কার্যালয়ে পাঠানো হয়েছে। আসামীদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যহত আছে।

আরএ/এমআর

বাংলাদেশ সময়: ২১:৪৯:২৫ ● ৬৯ বার পঠিত




পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)

আর্কাইভ