ইলিশ বহনের দায়ে শরীয়তপুরে ৩ পুলিশ সদস্য বরখাস্ত

প্রথম পাতা » ঢাকা » ইলিশ বহনের দায়ে শরীয়তপুরে ৩ পুলিশ সদস্য বরখাস্ত
বৃহস্পতিবার ● ১৭ অক্টোবর ২০১৯


ইলিশ বহনের দায়ে শরীয়তপুরে ৩ পুলিশ সদস্য বরখাস্ত

শরীয়তপুর সাগরকন্যা প্রতিনিধি॥

নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে ইলিশ বহন করায় শরীয়তপুরের তিন পুলিশ সদস্যকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। শরীয়তপুর পুলিশ লাইনসের আর আই (রিজার্ভ ইন্সপেক্টর) মো. সিরাজুল ইসলাম জানান, এটিএসআই (অ্যাসিসটেন্ট টাউন সাব-ইন্সপেক্টর) মিন্টু হোসেন এবং পুলিশের গাড়ি চালক কনস্টেবল সঞ্জিত সমাদ্দার ও হৃদয় হোসেনের বিরুদ্ধে বুধবার রাতে এ ব্যবস্থা নেওয়া হয়।
সিরাজুল বলেন, রাত সাড়ে ১১টার দিকে এই তিন পুলিশ সদস্য জাজিরা উপজেলার পদ্মা নদীর পাড় থেকে ইলিশ নিয়ে পুলিশ লাইনসে ফিরছিলেন। পথে জেলা শহরের পানি উন্নয়ন বোর্ডের কাছে স্থানীয়রা তাদের মাছসহ আটক করে শরীয়তপুর সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে হস্তান্তর করেন।
নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে মা ইলিশ বহনের দায়ে রাতেই জেলার পুলিশ সুপার আবদুল মোমেন তাদের বরখাস্ত করেন। বরখাস্তদের মধ্যে মিন্টু হোসেনের বাড়ি বরিশালে, সঞ্জিতের বাড়ি বাগেরহাট এবং হৃদয়ের বাড়ি মাদারীপুর জেলায়।
চাঁদপুরে ৯ জেলের সাজা: চাঁদপুরে মেঘনা নদীতে ইলিশ ধরার অপরাধে নয় জেলেকে নৌ-পুলিশ আটকের পর তাদের সাজা দিয়েছে ভ্রাম্যমাণ আদালত।
বৃহস্পতিবার ভোরে সদর উপজেলার রাজরাজেশ্বরে অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয় বলে চাঁদপুর নৌ থানার ওসি আবু তাহের খান জানান। পরে জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট উজ্জ্বল হোসেনের ভ্রাম্যমাণ আদালত তাদের সাজা দেন। ওসি বলেন, আটক জেলেদের মধ্যে ছয়জনকে এক বছর করে বিনাশ্রম কারাদ- দেওয়া হয়েছে। আর বাকিদের বয়স কম হওয়ায় সাজা হিসেবে দেওয়া হয়েছে পাঁচ হাজার টাকা করে অর্থদ-। এক বছরের সাজাপ্রাপ্তরা হলেন খালেক মোল্লা (৪৬), শরীফ (১৭), হারুন (৪৫), জাকির মিজি, (৪৪), শাহাবুদ্দিন (৩৫) ও মজিবুর রহমান (৪০)। (অর্থদ- প্রাপ্তদের নাম প্রকাশ করা হলো না।) এ ছাড়া এই নয় জেলের কাছ থেকে দ্ইুশ কেজি ইলিশ ও ৩০ হাজার মিটার কারেন্ট জাল জব্দ করা হয়েছে বলে জানান ওসি।
ইলিশ অভয়াশ্রম কর্মসূচির আওতায় চাঁদপুরের মেঘনা নদীর ৭০ কিলোমিটার এলাকায় ৯ অক্টোবর থেকে ৩০ অক্টোবর পর্যন্ত ২২ দিন ইলিশসহ সকল ধরনের মাছ শিকার নিষিদ্ধ করেছে সরকার।
মানিকগঞ্জে ১৭ জেলের জেল-জরিমানা: মানিকগঞ্জের শিবালয় উপজেলার পদ্মা ও যমুনা নদীতে মা ইলিশ শিকারের অপরাধে ১৭ জনকে আটক করেছে উপজেলা প্রশাসন। এদের মধ্যে ১০ জনকে এক বছর করে কারাদ- ও সাত জনকে ২৫ হাজার টাকা অর্থদ- দেওয়া হয়েছে।
বৃহস্পতিবার ভোর থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত এ অভিযান পরিচালনা করেন সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট জাকির হোসেন। দ-প্রাপ্তরা হলেন-আবুল কাশেম (৪৫), মোফাজ্জল ম-ল (৩২), টোকন সর্দার (২৫), আকরাম হোসেন (২৫), রহম আলী সর্দার (৫৮), আলতাফ আলী (৫৮), আলম শিকদার (৪০), সিদ্দিক (৩৭), শহীদ শেখ (৩৫) ও নুরুজ্জামান (৩৫)। শিবালয় উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট জাকির হোসেন বলেন,পদ্মা ও যমুনা নদীতে মা ইলিশ শিকারের অপরাধে ১০ জেলেকে এক বছর করে কারাদ- দেওয়া হয়েছে। বাকি ৭ জনকে ২৫ হাজার টাকা অর্থদ- দেওয়া হয়। এ সময় ৫০ হাজার মিটার কারেন্ট জাল ধ্বংস করা হয়, জব্দকৃত ৮০ কেজি ইলিশ দু’টি এতিমখানায় বিতরণ করা হয়। এছাড়াও ইলিশ ধরার ১০টি নৌকা এবং মাছ কেনায় সহযোগিতার দায়ে ৩টি ট্রলার ডুবিয়ে দেওয়া হয়েছে বলে জানা তিনি।

এফএন/এমআর

বাংলাদেশ সময়: ১২:৪৩:৫৮ ● ৩৪৮ বার পঠিত




পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)

আর্কাইভ