কুয়াকাটা খানাবাদ ডিগ্রি কলেজ ক্যাম্পাস যেন ফুল বাগান
হোমপেজ » কুয়াকাটা » কুয়াকাটা খানাবাদ ডিগ্রি কলেজ ক্যাম্পাস যেন ফুল বাগান


সোমবার, ২৯ জানুয়ারি ২০১৮

কুয়াকাটা খানাবাদ ডিগ্রি কলেজ ক্যাম্পাস

সুজন মৃধা, সাগরকন্যা প্রতিবেদন ॥
যতদূর চোখ যায় শুধু ফুলের বাগান। ক্যাম্পাসের প্রবেশ দ্বার থেকে শেষমাথা পর্যন্ত দুই সারিতে বিভিন্ন প্রজাতির ফুলের গাছ দেখে মনে হবে যেন কোন ফুলের বাগানে ঘুরতে এসেছেন। সরেজমিন ঘুরে এরকম দৃশ্য দেখা গেছে পটুয়াখালীর কলাপাড়া উপজেলার সাগর পাড়ের সর্বদক্ষিণের কলেজ ‘কুয়াকাটা খানাবাদ ডিগ্রি কলেজ’ ক্যাম্পাস। বাস্তবে ঘুরে এলেই সবারই আলাদা অনুভূতি হবে। সারা বছরে কোন না কোন ফুল ফোঁটে এ কলেজ ক্যাম্পাসের বাগানে।

কলেজ সূত্র থেকে জানা গেছে, ২০০৫ সনে এ কলেজ ক্যাম্পাসে ফুলের বাগান তৈরি করা হয়। ২০০৭ সনে প্রলয়ঙ্কারী ঘুর্ণিঝড় সিডর কলেজের স্থাপনাসহ সবকিছু উড়িয়ে নিয়ে যায়। এরপর নতুন করে কলেজ মেরামতসহ ক্যাম্পাসে তৈরি হয় ফুলের বাগান। বর্তমানে এ ক্যাম্পাস বাগানে চায়না রোজ, কাশমেরী রোজ, থোকা গোলাপ, সাদা গোলাপ, বেগুনী গোলাপ, লাল গোলাপ, নীলকন্ঠ, জিনিয়া, দশ প্রজাতির বাগানবিলাস, নয়নতারা, হলিহজ, লাল দোপাট্টা, গোলাপী দোপাট্টা, পলাশ, লাহেড়ী জবা, রজনীগন্ধা, ডালিয়া, লাল মৌসন্ধ্যা, সাদা মৌসন্ধ্যা, মাধুবীলতা, শেফালী, নাইটকুইন, কাঠালীজবা, কাঠগোলাপ, গাদাফুল, কসমস, চন্দ্রমল্লিকা, স্নোবল, ভূইচাঁপা, কয়েক প্রজাতির পাতাবাহার, রজনীগন্ধা, চেরী, বেলী, হাসনেহেনা, ক্রিসমাস ট্রি, বিভিন্ন প্রজাতির অর্কিট, রয়েছে নারিকেল, পেয়ারা, তাল, বড়ই, বেল, কাঠবাদামসহ বিভিন্ন প্রজাতির ফলদ গাছ। সুন্দরী, রাবার, বোতল ব্রাশ, সেগুন, অর্জুন, দেবদারু, গোলগাছ, বনসাই, ঝাউবন, খেজুর, পাম, হাড়িপাম, নোনা ঝাউ, আকাশমনি সহ বিভিন্ন বৃক্ষরাজিসহ প্রায় একশ প্রজাতির মতো ফুল, ফলদ ও বৃক্ষরাজি রয়েছে এখানে।
বাগান পরিচর্যাকারী কুয়াকাটা খানাবাদ ডিগ্রি কলেজের চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারী মো.মহিউদ্দিন, মো.আয়ুব আলী ও মো.নূরুজ্জামান জানান, বছরের সারা বছর কোন না কোন ফুল ফোঁটে এ কলেজ ক্যাম্পাসের ফুলের বাগানে। তারা আরো জানান, সারা বছর পরিচর্যা করি। বাগানের জন্য রয়েছে আলাদা পানির লাইন, পরিচর্যাকরণ বিভিন্ন ধরনের উপকরণ। শুধু আমরা না, এ কলেজের অধ্যক্ষসহ সকল শিক্ষকগণ এ বাগানের পরিচর্যা করে থাকে।
কুয়াকাটা খানাবাদ ডিগ্রি কলেজের প্রভাষক মো. শাহাবুদ্দিন হাওলাদার বলেন, ক্যাম্পাসের বাগানের খবর যারা জানেন তারা সময় পেলে কুয়াকাটা সৈকত দেখার ফাঁকে ঘুরতে আসে।
কলেজ ক্যাম্পাসে ঘুরতে আসা পর্যটক শহিদুল ইসলাম বলেন, কুয়াকাটায় এসে এখানকার লোকদের কাছে ফুলের সুন্দর বাগানের কথা শুনে দেখতে এলাম, দেখে খুব ভালো লাগলো।
অধ্যক্ষ সিএম সাইফুর রহমান বলেন, কলেজ ক্যাম্পাস সুন্দর করাই আমার কাজ। আমি রাজশাহী, ঢাকা ও বরিশালের বিভিন্ন জায়গা থেকে বিভিন্ন প্রজাতির চারা সংগ্রহ করেছি।
কলেজের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মোসা. বিলকিস জাহান বলেন, সবচেয়ে সুন্দর আমাদের কলেজের পরিবেশ। উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ থেকে যারা এ কলেজ ক্যাম্পাসে একবার এসেছে তারা অনেকেই সাগর পাড়ের অজগায়ে এরকম ক্যাম্পাস দেখে অবিভূত হয়েছে। ফুলের বাগানের সকল কৃতিত্ব অধ্যক্ষের।

এনইউবি/এনবি


বাংলাদেশ সময়: ০৪:২১:৫৭ পিএম | ৪২৪ বার পঠিত


পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)

পুরনো খবর দেখতে:



---

আরো পড়ুন...